চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মালদ্বীপের জালে বাংলাদেশের ১০ গোল

গত অক্টোবরে সাফে মালদ্বীপের বিপক্ষে ৯ গোলের বিশাল জয়ের সুখ স্মৃতি আছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবল দলের। ম্যাচটি হয়েছিল নেপালে। দুই মাস পর থাইল্যান্ডে ফিরল সেই স্মৃতি। এবারও লাল-সবুজ কিশোরদের কাছে পাত্তাই পেল না মালদ্বীপের কিশোররা।

উয়েফার অর্থায়নে চার জাতি অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবল টুর্নামেন্টে নিজেদের শেষ ম্যাচে মালদ্বীপ অনূর্ধ্ব-১৫ দলের বিপক্ষে ১০-০ গোলের বিশাল জয় পেয়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবল দল। হ্যাটট্রিক করেছেন অধিনায়ক হেলাল আহমেদ। দুটি করে গোল আছে নিহাত জামান উচ্ছ্বাস, রাসেল আহমেদ ও আশিকুর রহমানের।

শুক্রবার বুরিরামে আগের দুই ম্যাচে ২৮ গোল হজম করা মালদ্বীপ কিশোরদের জালে প্রথমার্ধেই পাঁচবার বল জড়ায় বাংলাদেশ। এই ৪৫ মিনিটের মধ্যেই নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন লাল-সবুজ অধিনায়ক হেলাল আহমেদ।

ম্যাচের ১২ মিনিটে প্রতিপক্ষের ডি-বক্সের বাইরে থেকে দারুণ এক ফ্রি-কিক শটে নিজের সঙ্গে দলের গোল খাতা খোলেন হেলাল। তিন মিনিট পরই ডি-বক্সের ভেতর জোরাল এক শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

Advertisement

হেলালের আরেকটি জোরাল শটেই ৩৩ মিনিটে ব্যবধান ৩-০ হয় বাংলাদেশের। সঙ্গে পূর্ণ হয় অধিনায়কের হ্যাটট্রিকও।

ম্যাচের ৩৯ মিনিটে পেনাল্টি শটে আশিকুর রহমানের গোলের দুই মিনিট পর নিহাত জামান উচ্ছ্বাস জাল খুঁজে পেলে ৫ গোলের ব্যবধান নিয়ে বিরতিতে যায় লাল-সবুজরা।

বিরতির পরও থামানো যায়নি বাংলাদেশের গোলবন্যা। ৪৮ মিনিটে সতীর্থের বাড়ানো বলে মাথা ছুঁয়ে দলের ষষ্ঠ গোলটি করেন ফরোয়ার্ড রাসেল আহমেদ। ৫৯ মিনিটে সপ্তম গোলটি আসে নিহাত জামান উচ্ছ্বাসের পা থেকে।

অষ্টম গোলটি এসেছে ৬৫ মিনিটে, রাসেল আহমেদের পা ছুঁয়ে। ৭৫ মিনিটে নবম গোলটি করেন আশিকুর রহমান। আর অতিরিক্ত সময়ে দলের ১০ নম্বর গোলটি মঈনুল ইসলাম মঈনের।

এই জয়ে তিন ম্যাচে সমান একটি করে জয়, ড্র ও হারে বাংলাদেশের পয়েন্ট চার। তিন ম্যাচ শেষে পয়েন্টের ভিত্তিতে নির্ধারিত হবে টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ। টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের অবস্থান জানা যাবে রাতে থাইল্যান্ড ও সাইপ্রাস ম্যাচের পর।