চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মার্কিন ধনীদের আয়করের বিস্তারিত তথ্য ফাঁস!

যুক্তরাষ্ট্রের বড় বড় বিলিয়নিয়াররা কিভাবে ছোট আয়ের কর প্রদান করে তার বিস্তারিত প্রকাশের দাবি নিয়ে একটি খবর প্রকাশিত হয়েছে।

সংবাদ ওয়েবসাইট প্রোপাবলিকা জানিয়েছে, তারা বিশ্বের বেশ কিছু ধনী ব্যক্তির আয়কর রিটার্ন দেখেছে। সেই তালিকায় জেফ বেজোস, এলন মাস্ক এবং ওয়ারেন বাফেটের মতো ধনীরা রয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

ওই ওয়েবসাইটটির দাবি অ্যামাজনের জেফ বেজোস ২০০৭ ও ২০১১ সালে কোনো কর দেননি আর টেসলার এলন মাস্ক ২০১৮ সালে কোনো কর প্রদান করেননি।

হোয়াইট হাউজের এক মুখপাত্র এই ফাঁসকে ‘অবৈধ’ হিসেবেই উল্লেখ করেছেন। এফবিআই এবং ট্যাক্স কর্তৃপক্ষ এই ঘটনার তদন্ত করছে।

তবে প্রোপাবলিকা বলেছে তারা বিলিয়নিয়ারদের আয়করের ‘অভ্যন্তরীণ রাজস্ব পরিষেবার অনেক পরিমাণ তথ্যগুলোর’ বিশ্লেষণ করছিলো এবং সামনের সপ্তাহগুলোতে এই সম্পর্কিত আরও বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করবে বলে জানিয়েছে।

তাদের মতে, শীর্ষ ২৫ জন ধনী আমেরিকান কম আয়কর প্রদান করেন।  বেশিরভাগ মূলধারার মার্কিন কর্মীদের থেকে তারা গড় সমন্বিত মোট আয়ের ১৫.৮ শতাংশ ট্যাক্স প্রদান করে।  নিখুঁতভাবে আইনী ট্যাক্স কৌশল ব্যবহার করে বেশিরভাগ ধনী তাদের ফেডারেল ট্যাক্স বিল পুরোপুরি সঙ্কুচিত করতে বা এর কাছাকাছি রাখতে সক্ষম হয়। এমনকি যদি এই সময়ে তাদের অর্থসম্পদ বেড়ে যায় তাহলেও।

অনেক ধনীরাও সাধারণ নাগরিকের মতো, দাতব্য অনুদান এবং মজুরি আয়ের চেয়ে বিনিয়োগের আয় থেকে অর্থ আয়ের মাধ্যমে তাদের আয়কর বিল হ্রাস করতে সক্ষম হয়।

প্রোপাবলিকা, ফোর্বস ম্যাগাজিনের সংগৃহীত তথ্য ব্যবহার করে বলেছে, ২০১৪ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত ২৫ জন ধনী আমেরিকানের সম্পদ সম্মিলিতভাবে ৪০১ বিলিয়ন ডলার বেড়েছে- তবে তারা এই বছরগুলোতে আয়কর হিসেবে ১৩ বিলিয়ন ডলার দিয়েছে।

বিজ্ঞাপন