চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মাদারীপুরে ডেঙ্গু আক্রান্ত আরও একজনের মৃত্যু

এ নিয়ে নিহতের সংখ্যা দাঁড়ালো পাঁচজনে

মাদারীপুরে শিবচরে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে রিপন হাওলাদার (৩০) নামে একজন মারা গেছে। এ নিয়ে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে জেলায় পাঁচজনের মৃত্যুতে এলাকার লোকজনের মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।

মৃত রিপন শিবচর উপজেলার সন্ন্যাসীরচর ইউনিয়নের রাজারচর গ্রামের হাবিবুর রহমান হাওলাদারের ছেলে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে: তিনদিন আগে জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা থেকে মাদারীপুরে যায় রিপন। এ সময় রিপন মাদারীপুরের শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে যায়। তার ডেঙ্গু শনাক্ত করে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হতে পরামর্শ দেন শিবচর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

পরে রিপন ফরিদপুর হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে বাড়িতে চলে যায়। রোববার রাতে তার অবস্থা গুরুতর হলে পুনরায় তাকে শিবচর হাসপাতালে নেয়া হয়। এ সময় চিকিৎসাধীন অবস্থায় গভীর রাতে তার মৃত্যু হয়।

রিপন ঢাকায় একটি গার্মেন্টেসে কাজ করতো বলে জানা গেছে।

এ নিয়ে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে জেলায় পাঁচজনের মৃত্যুতে এলাকার লোকজনের মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। তাই জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সচেতনতামূলক র‌্যালি ও সভার অনুষ্ঠিত হচ্ছে। স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা এই র‌্যালিতে অংশ নিয়েছে। জেলা প্রশাসন থেকে শুরু করে ইউনিয়ন পর্যায়ে এলজিএসপি ফান্ডের টাকা দিয়ে ফগার মেশিন কেনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের (টিএইচও) মোকাদ্দেস আলি জানান: চিকিৎসাধীন অবস্থায় রিপন নামে এক রোগী ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। রিপন ঢাকা থেকে আক্রান্ত হয়ে শিবচরে এসেছিল। তাকে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে বলা হলেও তিনি চিকিৎসা না নিয়ে বাড়িতে চলে যান। এরপর গতকাল রাতে আবার হাসপাতালে আসলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার টেকেরহাট এলাকার রুবেল হোসেনের মেয়ে শারমিন আক্তার (২২) বুধবার রাতে ঢাকার ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে মারা যান। শিবচরের সলুবেপারীরর কান্দি এলাকার বাবু খানের ছেলে ফারুক খান (২২) ও তার আগের দিন মঙ্গলবার কালকিনি উপজেলার পৌরসভার ঠেঙ্গামারা গ্রামের বারেক বেপারীর ছেলে জুলহাস বেপারী (৪৫) ঢাকায় মারা গেছেন।

এছাড়াও শনিবার নাদিরা বেগম নামে এক নারী কালকিনিতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ নিয়ে মাদারীপুর জেলার ৫ জন বাসিন্দা বিভিন্ন স্থানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।