চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মাদক এমন অঘটনও ঘটাতে পারে

রাজধানীর বাংলামোটর এলাকায় ঘটে গেল নৃশংস এক ঘটনা। মাদকের ভয়াবহ থাবা থেকে রেহাই পায়নি একটি শিশুসন্তানও। বাংলামোটরের লিংক রোডের খোদেজা খাতুন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উল্টো দিকের ১৬ নম্বর বাড়ির ভেতর থেকে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার বেলা ১টা ৫০ মিনিটে ওই শিশুর পিতা নুরুজ্জামান কাজলকে আটক করে শাহবাগ থানার দিকে নিয়ে যাওয়া হয়।পরিবারের সদস্যরা জানান, এলাকায় বেশ সুনাম রয়েছে কাজলদের পরিবারের। কিন্তু কাজলের আচার-আচরণের জন্য পরিবারের সদস্যরা তার ওপর বিরক্ত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, তার নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে মাস খানেক আগে তার স্ত্রী বাড়ি ছেড়ে চলে গেছেন। স্বামীর নির্যাতনের মুখে তার স্ত্রীকে উদ্ধার করে এলাকাবাসী।

এরকম আস্বাভাবিক ঘটনার জন্য মূলত দায়ী কাজলের মাদকাসক্তি। মাদক তাকে এমন পর্যায়ে নিয়ে গেছে যে তিনি নিজের শিশুসন্তানকে হত্যা করে জীবিত শিশুকে জিম্মি করতেও তিনি কুণ্ঠাবোধ করেননি।

বিজ্ঞাপন

দেশের প্রচলিত আইনে মাদক সেবনের বিরুদ্ধে তেমন কোন জোরালো আইন নেই। ফলে ঘরে ঘরে এমন মাদকাসক্ত মানুষের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এবং এ কারণে নিত্য ঘটে যাচ্ছে নানান অঘটন। আমাদের মনে আছে পুলিশ কর্মকর্তার মেয়ে ঐশী মাদকাসক্ত হয়ে নৃশংসভাবে খুন করেছিল তার বাবা মাকে। ঐশী মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত হয়ে এখন কারাগারে আছে।

মাদক যে কত বড় ভয়াবহ বিপর্যয় নিয়ে আসতে পারে পারিবারিক ও সামাজিক জীবনে ঐশীর ঘটনা এবং সর্বশেষ এই শিশু হত্যা ও জিম্মির ঘটনা না ঘটলে আমাদের সমাজের চোখ খুলত না।

রাষ্ট্রীয়ভাবে মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করলেও কোনো সমাধান হয়নি। এজন্য সামাজিক আন্দোলনও জরুরি। আমরা মনে করি, রাষ্ট্রীয় উদ্যোগের সঙ্গে সামাজিকভাবেও মাদকাসক্তির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা এখনই জরুরি।

Bellow Post-Green View