চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মহামারীতে রূপ নেওয়ার মতো চীনে আরেকটি নতুন ভাইরাসের সন্ধান!

বিশ্ব মহামারী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব এখনো ভয়ংকরভাবে চলছে। এরই মধ্যে চীনা বিজ্ঞানীরা আরেকটি দুঃসংবাদ দিলেন। মহামারী ঘটাতে পারে এমন আরেকটি নতুন ফ্লু ভাইরাসের সন্ধান দিয়েছেন তারা।

বিজ্ঞানীদের বরাত দিয়ে বিবিসি বলছে, সম্প্রতি চিহ্নিত হওয়া এই ভাইরাসটি শূকর বহন করে। তবে এটি মানুষকেও আক্রান্ত করতে পারে।

বিজ্ঞাপন

গবেষকদের আশঙ্কা, মানুষ থেকে মানুষের মাঝে সহজে ছড়িয়ে পড়তে ভাইরাসটি। শক্তি সঞ্চয় করে বিশ্বজুড়ে নতুন মহামারিতে রূপ নিতে পারে। শূকর থেকে নতুন ফ্লু ভাইরাসটিতে মানুষকে আক্রান্ত করার মতো সকল লক্ষণ দেখা যাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

নতুন ভাইরাস হওয়ায় এথেকে মানুষের সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম থাকবে বলেও ধারণা করছেন বিজ্ঞানীরা। তবে এখনই এটি নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার মতো কিছু না থাকলেও নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা দরকার বলে মনে করেন বিজ্ঞানীরা।

বিজ্ঞাপন

সর্বশেষ মেক্সিকো থেকে ছড়িয়ে পড়া সোয়াইন ফ্লু বিশ্বে মহামারী রূপ নেয় ২০০৯ সালে।নতুন এই ভাইরাসের সঙ্গে ২০০৯ সালের সোয়াইন ফ্লুর মিল রয়েছে। তবে এর সঙ্গে নতুন কিছু পরিবর্তন যুক্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত নতুন ভাইরাসটি বড় কোনও হুমকি তৈরি করেনি।

কিন্তু ভাইরাসটি নিয়ে গবেষণা করা যুক্তরাজ্যের নটিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক কিন-চো চ্যাং এবং তার সহকর্মীরা বলছেন, এই ভাইরাসটি সম্প্রতি চীনের শূকর এবং কসাইখানা ইন্ড্রাস্টিতে কর্মরত লোকদের আক্রান্ত করা শুরু করেছে। এর ওপর দৃষ্টি রাখতে হবে।

নতুন এই ফ্লু ভাইরাসটিকে গবেষকেরা জি৪ইএএইচ১এন১ নামে অভিহিত করছেন। এটি মানুষের শ্বাসযন্ত্রের মধ্যে বেড়ে উঠতে এবং বিস্তার ঘটাতে পারে।

গবেষক দলের প্রধান কিন-চো চ্যাং মনে করেন, করোনাভাইরাস নিয়ে এই মুহুর্তে সবাই ব্যস্ত থাকলেও নতুন ভাইরাসের সম্ভাব্য বিপদের ওপর থেকে চোখ সরানো চলবে না।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়া কোভিড-১৯ করোনাভাইরাস বাদুড় থেকে মানুষের মধ্যে সংক্রিমত হয়েছে বলে ধারণা বিজ্ঞানীদের। এই ভাইরাস সংক্রমণের মাত্র ছয় মাসের মধ্যে বিশ্বে এক কোটির অধিক মানুষ সংক্রমিত হয়েছে, মারা গেছে ৫ লাখের অধিক মানুষ।