চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মহাকাশে ভেসে খাবার খাচ্ছেন চীনা নভোচারীরা

প্রথম ২৪ ঘণ্টার কাজের মধ্যে ছিল বিকেলের ঘুমও

মহাকাশে চীনের নতুন মহাকাশ স্টেশনে থাকা নভোচারীদের একদিনের কাজের তালিকায় বিকেলের ঘুমও ছিল।

বুধবার প্রকাশিত নতুন ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে তিন নভোচারী নেই হাইশেং, লিউ বমিং এবং ট্যাং হংবো তাদের চারপাশে ভেসে বেড়ানো বক্স থেকে খাবার খাচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

তিয়ানহে মডিউলে প্রথম ২৪ ঘণ্টার ভিডিও ধারণ করেছেন নভোচারীরা, তারা সেখানে ৩ মাস সময় কাটাবেন।

এটাই হবে এখন পর্যন্ত চীনের সবচেয়ে দীর্ঘতম ক্রুযুক্ত মহাকাশ মিশন এবং প্রায় পাঁচ বছরের মধ্যে প্রথম।

চীনের সরকারি টেলিভিশন ‘সেন্ট্রাল চীনা টেলিভিশন’ এ প্রকাশিত ভিডিও ক্লিপে দেখা যায়, নভোচারীরা সকাল আটটায় স্থল নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রের সঙ্গে যোগাযোগ করে দিন শুরু করে, পরে রাত ৯টা পর্যন্ত সেখানে সর্বশেষ আপডেট দেওয়ার আগে তারা নানান কাজ করতেই থাকে।

বিজ্ঞাপন

টিভিতে বলা হয়, প্রতি সপ্তাহে নভোচারীরা একদিন করে ছুটির দিন পাবেন যেন নতুন উদ্যমে কাজ শুরু করতে পারেন।

বুধবার ফোনকলে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং নভোচারীদের সঙ্গে কথা বলেন, কাজের জন্য নভোচারীদের ধন্যবাদ জানান জিনপিং। বলেন, আপনারা তিন মাস মহাকাশে কাটাবেন। সেখানে আপনাদের কাজ ও জীবনযাপন চীনা জনগণের হৃদয়ে থাকবে।

শেনঝু-১২ মিশনে কমান্ডার নেই হাইশেং এবং তার দলের মূল লক্ষ্য ২২.৫ টন তিয়ানহে মডিউলের কাজ শুরু করা।

মহাকাশে এই উদ্বোধন এবং পরবর্তী মিশন চীনের ক্রমবর্ধমান আস্থা ও সামর্থ্যের আরও একটি  প্রদর্শন।

গত ছয় মাসে দেশটি চাঁদ থেকে পাথর ও মাটির নমুনা এনেছে পৃথিবীতে, ছয় চাকার একটি রোবট অবতরণ করিয়েছে মঙ্গলে। সেই দুটিই সবচেয়ে জটিল ও চ্যালেঞ্জিং অভিযান ছিল।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে চীন তাদের মহাকাশ নিয়ে উচ্চাশা কখনো লুকায়নি।  মহাকাশ অভিযানে তারা অনেক তহবিল দিয়েছে। এভাবেই ২০১৯ সালে চাঁদের অন্ধকার পৃষ্ঠে ক্রু রোভার প্রেরণকারী প্রথম দেশ হয়ে ওঠে চীন।