চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মধ্য পর্যায়ের ট্রায়ালে চীনা ভ্যাকসিনের ‘প্রাথমিক সাফল্য’

কোভিড-১৯ প্রতিরোধে মধ্য পর্যায়ের ট্রায়ালেই চীনের সিনোভ্যাক বায়োটেকের একটি ভ্যাকসিনকে সফল বলে দাবি করেছেন গবেষকরা।  

তারা জানিয়েছেন, সিনোভ্যাক বায়োটেকের একটি ভ্যাকসিন পরীক্ষা শুরুর মধ্যম স্তরেই খুব দ্রুত মানব শরীরে প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করছে। ৭০০ জনের মধ্যে এর পরীক্ষা চালানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বৈজ্ঞানিক জার্নাল দ্য ল্যানসেটে এ ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে চীনে কয়েকটি ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক ট্রায়াল চলছে। এ বছরের এপ্রিল ও মে মাসে গবেষণাটি চালানো হয়। এতে দেখা যায়, জরিপের মধ্যম স্তরেই সিনোভাক বায়োটেকের করোনার ভ্যাকসিন দ্রুত শরীরে প্রতিরোধ ক্ষমতা জাগিয়ে তোলে। যদিও গবেষকরা ভ্যাকসিনটি মানব শরীরে কতটুকু কার্যকরী তার শতকরা কোনো হিসাব জানাননি।

জার্নালটির অন্যতম লেখক ঝু ফেংচাই বলেন, ভ্যাকসিনটির কার্যকারিতে নিয়ে প্রথম ধাপে ১৪৪ জন এবং দ্বিতীয় ধাপে ৬০০ জনের ওপর ভিত্তি করে ফলাফল তৈরি করা হয়েছে। এতে দেখা যায়, মানব শরীরে ভ্যাকসিনটি ‘জরুরি ব্যবহারের জন্য উপযুক্ত’।

ইউরোপ ও মার্কিন ভ্যাকসিনগুলোর ট্রায়ালের ডেটা সফলভাবে অনেক দেরিতে জানানোর পরই এ সুখবরটি দিলেন গবেষকরা। এদিকে, ১০ হাজার মানুষের মধ্যে তিনটি ভ্যাকসিনের ট্রায়াল চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া এবং জার্মানি। পরীক্ষা চালানোর পর ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা ৯০ শতাংশ উল্লেখ করা হয়েছে। করোনা

মহামারি প্রতিরোধে অন্য দেশের মতো চীনেও চারটি ভ্যাকসিন তৃতীয় ও চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। তার একটি সিনোভ্যাক বায়োটেকের।