চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ভ্যাকসিনে আস্থা বেড়েছে বিশ্ববাসীর, অবসানের পথে মহামারি

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের প্রতি আস্থা বেড়েছে বিশ্ববাসীর। আগে যেসব মানুষ টিকা নেওয়ার ব্যাপারে সন্দিহান ছিলেন তারাও এখন টিকা নিতে চাচ্ছেন।

স্বেচ্ছায় টিকা নেওয়ার আগ্রহ বাড়ায় মহামারি অবসানের আশা তৈরি হয়েছে। এক জরিপের বরাত দিয়ে বৃহস্পতিবার রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

জরিপে অংশ নেওয়া ব্যক্তিদের অর্ধেকই বলেছেন, আগামী সপ্তাহে ভ্যাকসিন দেওয়া হলে তারা তা গ্রহণ করবেন। ভ্যাকসিনের প্রতি আস্থার কথা বলেছেন আরও বেশি মানুষ।

রয়টার্স জানায়, অক্সফোর্ডের ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি ইউনিট এবং যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রগুলোর সর্বশেষ তথ্য অনুসারে, প্রায় সাড়ে ১০ কোটি ভ্যাকসিন ডোজ দেওয়া হয়েছে। রয়টার্সের গ্লোবাল ট্র্যাকারে এখন মোট টিকা দেয়ার সংখ্যা প্রায় প্রায় সাড়ে নয় কোটি।

বিজ্ঞাপন

রয়টার্স ট্র্যাকার অনুসারে, করোনা এখনো বিশ্বের ৪৪টি দেশে রয়েছে। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে ২২ লাখের বেশি মানুষ মারা গেছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক জানান, মহামারি অবসানের জন্য বিশ্বব্যাপী নিদিষ্ট পর্যায়ে ভ্যাকসিন প্রয়োজন। এর জন্য বড় দেশগুলোর সহযোগিতা প্রয়োজন।

অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন করোনা সংক্রমণ কমায়
অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির সমীক্ষা বলছে, যারা কোভিশিল্ড নিয়েছেন, তারা করোনার হাত থেকে বাঁচছেন। সাধারণত ভ্যাকসিন নেওয়ার পর অনেক সময় তারা অন্যদের মধ্যে ভাইরাস ছড়ানোর কাজটা করতে পারেন। কিন্তু, কোভিশিল্ড নিলে শুধু যে তিনি সুরক্ষিত থাকছেন তাই নয় তার কাছ থেকে অন্যদের মধ্যে ভাইরাস সংক্রমনের সম্ভাবনাও দুই-তৃতীয়াংশ কমে যাচ্ছে। এক ডোজ ভ্যাকসিনে করোনা থেকে সম্পূর্ণ সুরক্ষা পাওয়া যাবে না, তবে তারা গুরুতর অসুস্থও হবেন না বলে গবেষকদের দাবি।

এক ডোজ ভ্যাকসিন নিলে দুই মাসের জন্য ৭৬ শতাংশ সুরক্ষা পাওয়া যাবে বলে মনে করছেন গবেষকরা। তবে তাদের গবেষণার রিপোর্ট হলো, একবার ভ্যাকসিন নিলে ১২ সপ্তাহ পর্যন্ত তার সুফল পাওয়া যাবে।