চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ভালো-মন্দের মিশেলে কাটলো দিন

মিরপুর টেস্টের প্রথমদিন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বড় কোনো জুটি গড়তে দেয়নি বাংলাদেশ। বোলিংয়ে স্বাগতিকদের স্বস্তি এতটুকুই। অস্বস্তিতে ভুগিয়ে ক্যারিবীয়দের ষষ্ঠ উইকেট জুটি এখন টাইগারদের পথের কাঁটা।

শেষ ঘণ্টায় এনক্রুমা বোনার ও জশুয়া ডি সিলভা ২২ গজে জমে যাওয়ায় দিনটি উইন্ডিজেরই। প্রথমদিন শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ২২৩ রান তুলেছে তারা। ফিফটি পেরিয়ে বোনার ৭৪ ও জশুয়া ২২ রানে অপরাজিত।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

উইন্ডিজের ওপেনিং জুটির বিচ্ছেদ ঘটাতে সময় লেগেছে খুব। শুরুর জুটি থেকে এসেছে ৬৬ রান। জন ক্যাম্পবেলকে (৩৬) এলবিডব্লিউ করে প্রথম সাফল্য এনে দেন তাইজুল ইসলাম। প্রথম সেশনে ওই একটির বেশি উইকেট ফেলতে পারেনি টাইগাররা।

দ্বিতীয় সেশনটি নিজেদের করে নেয় বাংলাদেশ। ক্যারিবিয়ানরা হারায় ৩ উইকেট। যার একটি সৌম্য সরকার ও দুটি নেন আবু জায়েদ রাহি।

বিজ্ঞাপন

১ উইকেটে ৮৪ রান নিয়ে লাঞ্চে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বিরতির পর শেন মোয়েসলকে (৭) বোল্ড করেন রাহি। ক্যারিবীয়দের রান তিনঅঙ্ক পেরোলে আঘাত হানেন সৌম্য।

ফিফটির খুব কাছে থাকা উইন্ডিজ অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট (৪৭) ক্যাচ দেন স্লিপে দাঁড়িয়ে থাকা নাজমুল হোসেন শান্তর হাতে।

কিছুক্ষণ পর চট্টগ্রাম টেস্টে মহাকাব্যিক ইনিংস (২১০*) খেলা কাইল মেয়ার্সকে (৫) স্লিপে সৌম্যর ক্যাচ বানান রাহি। ১১৬ রানে চতুর্থ উইকেট হারায় সফরকারীরা।

বোনারকে নিয়ে ব্লেকউড চালিয়ে যান লড়াই। তাদের জুটিতে আসে ৫২ রান। চা-বিরতির পর জার্মেইন ব্লেকউডকে (২৮) কট অ্যান্ড বোল্ড করে দারুণ একটি সেশনের ইঙ্গিত দেন তাইজুল। দেখা পান দ্বিতীয় শিকারের।

কিন্তু বোনার ও জশুয়ার প্রতিরোধ বাংলাদেশকে নিয়ে গেছে ব্যাকফুটে। ম্যাচের দ্বিতীয় দিন দ্রুত তাদের বিচ্ছিন্ন করাই চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশের।