চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ভার্চুয়াল মাধ্যমে হবে পোশাক খাতের প্রদর্শনী টেক্সওয়ার্ল্ড

করোনাভাইরাসের কারণে ফ্রাঙ্কফুর্টের এ বছরের গ্রীষ্মকালীন প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে ভার্চুয়াল মাধ্যমে। আগামী ২১-২৩ জুলাই পর্যন্ত ভার্চুয়াল এ সোর্সিং প্রদর্শনী চলবে।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানিয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় মেলার আয়োজনকারী প্রতিষ্ঠান মেসে ফ্রাঙ্কফুর্ট।

বিজ্ঞাপন

এতে বলা হয়, প্রতি বছর মেসে ফ্রাংকফুর্টের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় বিশ্বের অন্যতম শীর্ষটেক্সওয়ার্ল্ড/অ্যাপারেল সোর্সিং/হোমটেক্সটাইল সোর্সিংয়ের প্রদর্শনী। কিন্তু করোনার কারণে এ বছর গ্রীষ্মকালীন প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে ভার্চুয়াল মাধ্যমে।

বিজ্ঞাপন

জানা গেছে, প্রদর্শনীর জন্য ব্যবহৃত জাভিটস সেন্টারকে কভিড-১৯ মহামারীর এ সময়ে অস্থায়ী হাসপাতালে পরিণত করা হয়েছে। যে কারণে মেসে ফ্রাঙ্কফুর্ট সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এবারের গ্রীষ্মকালীন প্রদর্শনী ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে আয়োজন করবে তারা।এতে করে অস্বাভাবিক এই সময়েও সোর্সিং কমিউনিটিকে সহায়তা করা সম্ভব হবে।

বিজ্ঞাপন

মেলার আয়োজক ও পোশাক খাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, মহামারী করোনার কারণে এবারের গ্রীষ্মের প্রদর্শনী ভার্চুয়াল মাধ্যমে করায় মেসে ফ্রাংকফুর্টের ভালো এবং খারাপ সময়েও পোশাক শিল্পকে সহায়তা করার মনোভাবকেই তুলে ধরে। আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ বাজারে দীর্ঘসময় ধরে প্রদর্শনী করছে এমন প্রস্তুতকারীদের সহায়তায় জুলাইয়ের এ ভার্চুয়ালপ্রদর্শনীতে সব ধরনেরই বৈশিষ্ট্য এবং সুবিধা পাওয়া যাবে, যা অন্যান্য সময়ের প্রদর্শনীতে পাওয়া যায়।

একটি অনলাইন শোরুম বিভিন্ন উদ্ভাবনকে সবার সামনে তুলে ধরবে এবং একই সময়ে দর্শক আর প্রদর্শক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় বিষয়, কারখানার বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য নিয়ে সরাসরি যোগাযোগের সুযোগ করে দেবে।

প্রদর্শক ও দর্শক উভয়েই স্মার্ট এবং ইনটুইটিভ নেটওয়ার্কিং টুলের মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারবে, যা বিভিন্ন প্রোগ্রামিংয়ের মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের জন্য সর্বাধিক প্রাসঙ্গিক প্রদর্শক এবং সেশনের পরামর্শ দেয়। ডিজিটাল প্রদর্শনীর সঙ্গে সঙ্গে একই সময়ে একটি বিস্তৃত শিক্ষা কার্যক্রমও চলবে। যার মধ্যে বিভিন্ন স্থিতিশীল উদ্যোগ, ব্যবসায়ের পরামর্শ এবং পরিবেশগত এবং নৈতিক টিপস এবং মহামারীর সময়েও সোর্সিং এর বিভিন্ন সুযোগ নিয়ে প্রশিক্ষণ থাকবে।

২০১৯ সালের জুলাইর প্রদর্শনীতে একসাথে অনুষ্ঠিত প্রদর্শনীগুলোতে বিশ্বের ২০ টি দেশ থেকে ৮৪৩ জন প্রদর্শক অংশ নিয়েছিলেন। ৬০০০ এরও বেশি দর্শক অংশ নিয়েছিলেন গ্রীষ্মকালীন এই প্রদর্শনীতে। বাংলাদেশ থেকে ৬ জন ফ্যাব্রিক, গার্মেন্টস, এবং হোম টেক্সটাইল প্রস্তুতকারী অংশ নিয়েছিলেন।

এতে আরো জানানো হয়, এরপরের টেক্সওয়ার্ল্ড/ অ্যাপারেল সোর্সিং/ হোমটেক্সটাইল সোর্সিং, ইউএসএ অনুষ্ঠিত হবে ২০২১ সালের ২৫-২৭ জানুয়ারি, ইন্টারটেক্সটাইল সাংহাই অ্যাপারেল ফ্যাব্রিক্স অনুষ্ঠিত হবে ২৩-২৫ সেপ্টেম্বর এবং টেক্সওয়ার্ল্ড/ অ্যাপারেল সোর্সিং প্যারিস অনুষ্ঠিত হবে ১-৪ ফেব্রুয়ারি।