চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ভার্চুয়ালি শেষ হলো বাংলালিংকের ‘লার্ন ফ্রম দ্য স্টার্টআপস’

ইন্টারঅ্যাকটিভ ভার্চুয়াল সেশনের মাধ্যমে সম্পন্ন হয়েছে বাংলালিংকের ‘লার্ন ফ্রম দ্য স্টার্টআপস’ প্রোগ্রামের এবারের আয়োজন।

স্নাতক পর্যায়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদেরকে দেশের সেরা স্টার্টআপগুলির কাছ থেকে অভিজ্ঞতা অর্জনের সুযোগ দিতে এই কর্মসূচি পরিচালনা করে আসছে বাংলালিংক।

বিজ্ঞাপন

২০১৯ সালে চালু হওয়ার পর থেকে “লার্ন ফ্রম দ্য স্টার্টআপস” প্রোগ্রামটি উৎসাহী শিক্ষার্থীদের স্টার্টআপ সম্পর্কে ধারণা প্রদান করার পাশাপাশি নিজস্ব দক্ষতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে আসছে।

বিজ্ঞাপন

বাংলালিংক আইটি ইনকিউবেটরে অংশগ্রহণকারী ই-লার্নিং ভিত্তিক স্টার্টআপ টিচ ইট-এর উদ্যোক্তারা ভার্চুয়াল সেশনে তাদের বিভিন্ন অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন। এবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যারিয়ার ক্লাবের সাথে যৌথভাবে কর্মসূচিটি পরিচালনা করেছে বাংলালিংক। ক্লাবের সদস্যরা চার জন করে এক একটি দল গঠন করে “লার্ন ফ্রম দ্য স্টার্টআপ”-এ অংশগ্রহণ করে।

বিজ্ঞাপন

প্রথম তিনটি ওয়েবিনার সেশনে আইডিয়া জেনারেশন, ডিজাইন থিংকিং, বিজনেস ক্যানভাস বিল্ডিং, অপারেশনাল প্রোসেস ও ডিজিটাল লঞ্চিং-এর উপর শিক্ষার্থীদের ধারণা দেওয়া হয়। এরপর শিক্ষার্থীদের প্রেজেন্টেশন সেশন এবং সমাপনী অধিবেশনের মাধ্যমে এবারের আয়োজন শেষ হয়।

বাংলালিংক-এর চিফ হিউম্যান রিসোর্সেস অ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অফিসার মনজুলা মোরশেদ বলেন, “সম্ভাবনাময় তরুণদেরকে উদ্যোক্তা হতে উৎসাহ দেওয়ার জন্য আমরা বেশ কিছু সংখ্যক কর্মসূচি পরিচালনা করে যাচ্ছি। আমাদের ‘লার্ন ফ্রম দ্য স্টার্টআপস’ প্রোগ্রামটি শিক্ষার্থীদের স্টার্টআপ সম্পর্কে বাস্তব ধারণা দিয়ে থাকে। অপরদিকে, ‘ইনোভেটর্স’ তাদেরকে অভিনব পরিকল্পনার মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা সমাধানের সুযোগ দিচ্ছে। এছাড়া প্রাথমিক পর্যায়ের স্টার্টআপগুলিকে সহযোগিতা করার জন্য আমাদের ‘আইটি ইনকিউবেটর’ নামক আরেকটি প্রোগ্রাম চালু আছে। করোনা মহামারীর কারণে ‘লার্ন ফ্রম দ্য স্টার্টআপস’ এবার ভার্চুয়াল মাধ্যমে পরিচালনা করতে হয়েছে। তবে শিক্ষার্থী, উদ্যোক্তা ও আয়োজকদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমরা প্রোগ্রামটি সফল ভাবে সম্পন্ন করতে পেরেছি।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা বিভাগের ডিন প্রফেসর ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন কর্মসূচিটির প্রশংসা করে বলেন, “এই উদ্যোগ আমাদের সম্ভাবনাময় তরুণদের নিজ প্রচেষ্টায় বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা সমাধানে সাহায্য করবে। ঢাকা ইউনিভার্সিটি ক্যারিয়ার ক্লাব ও বাংলালিংক-কে এই বিশেষ ট্রেনিং সেশন আয়োজন করার জন্য ধন্যবাদ জানাই। এটি সত্যিই প্রশংসনীয় একটি প্রশিক্ষণের উদ্যোগ, যা মহামারীর সময়ও স্টার্টআপ ব্যবস্থার সামগ্রিক বিকাশে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে।”

এবারের ভার্চুয়াল সেশনে অন্যান্যদের মধ্যে যুক্ত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অরগানাইজেশনাল স্ট্রাটেজি অ্যান্ড লিডারশিপ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. রাশেদুর রহমান, টিচ ইট-এর কো-ফাউন্ডার ও চিফ মার্কেটিং অফিসার সৈয়দ নাইমুল হোসেন সহ বাংলালিংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

প্রযুক্তির মাধ্যমে তরুণদের ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে এ ধরনের উদ্যোগ অব্যাহত রাখবে বাংলালিংক।