চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ভারতে বাস খাদে পড়ে বহু হতাহত

ভারতের আগ্রার কাছে একটি যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে ২৯ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়েছে কমপক্ষে ১৭ জন।

এনডিটিভি জানিয়েছে, লখনৌ থেকে দিল্লি যাওয়ার পথে সোমবার সকালে আগ্রার কাছে ছয় লেন বিশিষ্ট যমুনা এক্সপ্রেসওয়েতে ওই স্লিপার কোচটি হঠাৎ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ১৫ ফুট নিচে খাদে পড়ে যায়। নিচে থাকা বিশাল একটি নালায় পড়ে কাদামাটিতে আটকে যায় বাসটি। এতে ঘটনাস্থলেই ২৯ জনের মৃত্যু হয়।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাস্থল থেকে এ পর্যন্ত ২০ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। বাকিদের উদ্ধারে কাজ চলছে। স্লিপার বাস হওয়ায় হতাহতের সংখ্যা বেশি বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তবে বাসটিতে যাত্রী সংখ্যা ঠিক কত ছিল তার নিশ্চিত তথ্য এখনো পাওয়া যায়নি।

উত্তরপ্রদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে একটি টুইটবার্তায় বলা হয়েছে: ‘একটি স্লিপার কোচ বিশিষ্ট যাত্রীবাহী বাস লখনৌ থেকে দিল্লি যাওয়ার পথে যমুনা এক্সপ্রেসওয়েতে দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে। বাসটি রাস্তার পাশের প্রায় ১৫ ফুট গভীর খাদে গিয়ে পড়ে। এখন পর্যন্ত ২০ জন যাত্রীকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। উদ্ধারকাজ চলছে।’

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় সূত্র থেকে পাওয়া তথ্য থেকে এনডিটিভি জানায়, ঘটনার সময় বাসের চালক হঠাৎ ঘুমিয়ে পড়ায় চলন্ত বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, সাদা রঙের যাত্রীবাহী বাসটি দুমড়েমুচড়ে পড়ে আছে এবং সেখান থেকেই মরদেহগুলোকে টেনে বাইরে নিয়ে আসা হচ্ছে। একটি বেশ বড় নালার মধ্যে বাসটি ঢুকে আছে এবং অনেকখানিই ঢুকে আছে পচা কাদাপানির মধ্যে।

ভয়াবহ এ বাস দুর্ঘটনায় শোক প্রকাশ করে নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। হতাহতদের পরিবারের লোকজন যেন সব রকম সুযোগ সুবিধা লাভ করে, সেদিকে বিশেষ নজর দিতে বলেছেন তিনি।

জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জানিয়েছেন, আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

১৬৫ কিমি. দীর্ঘ লখনৌ-আগ্রা যমুনা এক্সপ্রেসওয়ে উত্তরপ্রদেশের নয়ডা ও আগ্রাকে সংযুক্ত করেছে। সম্প্রতি ছয় লেন বিশিষ্ট এই মহাসড়কে দুর্ঘটনা বাড়ছে। বিশেষ করে ভোর এবং রাতে এই রাস্তা দিয়ে দ্রুত গতিতে যানবাহন চলাচলের প্রবণতার ব্যাপারে বহুদিন ধরেই আশঙ্কা প্রকাশ করে আসছেন সড়ক নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা।

Bellow Post-Green View