চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ভারতে করোনা শনাক্তের ‘আরোগ্য সেতু অ্যাপ’ নিয়ে দ্বন্দ্ব

ভারতে করোনাভাইরাস সংক্রমণ চিহ্নিত করতে ‘আরোগ্য সেতু’ অ্যাপটি বাধ্যতামূলকভাবে ব্যবহার করতে সকল সরকারি এবং বেসরকারি কর্মীকে নির্দেশ দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে এক টুইটে সমালোচনা করেছেন রাহুল গান্ধী।

এই অ্যাপ্লিকেশনটি সবার ফোনে রাখতে নির্দেশ দিয়েছে সরকার। এপ্রিলে এই অ্যাপ্লিকেশন আসলেও তখন বাধ্যতামূলক করা হয়নি এর ব্যবহার। তৃতীয় দফায় লকডাউন বাড়ানোর পর ৪ মে থেকে অ্যাপটি ব্যবহারে সরকারি বাধ্যবাধকতা দেয়া হলো।

বিজ্ঞাপন

নির্দেশনায় বলা হয়, আগামী দুই এক সপ্তাহের মধ্যেই ৩০ লাখ ডাউনলোড এর লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার। তবে যারা বাড়ি থেকে কাজ করছেন তাদের অ্যাপ ব্যবহার না করলেও চলবে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

সরকারি সব সংস্থার কর্মীদের ফোনে এই অ্যাপস রাখতেই হবে। নয়তো সেই সংস্থার প্রধানকে অভিযুক্ত করা হবে। এই মর্মে নির্দেশনা দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার।

আরোগ্য সেতু অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারে সরকারের এই বাধ্যবাধকতার সমালোচনা করে টুইট বার্তায় রাহুল গান্ধী বলেন: ‘আরোগ্য সেতু অ্যাপটি আদতে অভিজাত নজরদারি ব্যবস্থা। বেসরকারি সংস্থা দ্বারা পরিচালিত। যার ওপর সরকারের কোনও নিয়ন্ত্রণ নেই। এর ফলে তথ্য ও ব্যাক্তি পরিসর খর্ব হবে। প্রযুক্তি আমাদের নিরাপদ রাখে সাহায্য করে। কিন্তু মানুষের অনুমতি ছাড়া তাদের ওপর নজরদারি চালানোর অনুমতি দেয় না।’

এপ্রিলের শুরুর দিকে এই অ্যাপ্লিকেশন আনা হয়। এরপর থেকেই এর ব্যবহার বাড়তে থাকে। অ্যাপটির ব্যবহার বাড়াতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও উৎসাহিত করেন।