চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ব্লকবাস্টার একটি ছবি হবে ‘অপারেশন সুন্দরবন’

ঈদুল আযহায় তারকাবহুল ‘অপারেশন সুন্দরবন’ ছবিটি মুক্তির কথা ঘোষণা করেছেন নির্মাতা দীপঙ্কর দীপন…

বহুল আলোচিত ও তারকাবহুল ছবি ‘অপারেশন সুন্দরবন’-এর মুক্তির সম্ভাব্য তারিখ ২০২০ সালের ঈদুল আযহা। সুন্দরবন জলদস্যু মুক্ত ঘোষণা করার প্রথম বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে শুক্রবার (১ নভেম্বর) এমনটাই জানালেন ছবির নির্মাতা দীপঙ্কর দীপন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক সুন্দরবন জলদস্যু মুক্ত ঘোষণা করার প্রথম বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান উদযাপিত হলো বাগেরহাট জেলা স্টেডিয়ামে। অনুষ্ঠানটিতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, এম পি।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে সুন্দরবনে র‍্যাবের দুঃসাহসিক অভিযানের উপর ভিত্তি করে, র‍্যাব ওয়েলফেয়ার কো-অপারেটিভ সোসাইটি ও থ্রি হুইলারস লিমিটেডের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিতব্য ‘অপারেশন সুন্দরবন’ সিনেমার শিল্পী ও কলাকুশলীদের সাথে পরিচয় অনুষ্ঠান হয়। এখানে সিনেমার লোগো উন্মোচন করার পর নির্মাতা জানান, ২০২০ সালের ঈদ-উল-আজহায় মুক্তি পাবে ছবিটি।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে একটি অডিও ভিজ্যুয়ালের মাধ্যমে সিনেমাটির থিম তুলে ধরা হয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সিনেমাটির লোগো পোস্টার উন্মোচন করেন। তারপরে কলাকুশলীদের সাথে পরিচয় করানো হয়।

সিনেমাটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করবেন রিয়াজ আহমেদ, সিয়াম আহমেদ, নুসরাত ফারিয়া, জিয়াউল রোশান, তাসকিন রহমান, মনোজ প্রামানিক , সামিনা বাশার, দীপু ইমাম, এহসানুর রহমানসহ আরও অনেকে।

কলাকুশলীদের সাথে উপস্থিত ছিলেন যৌথ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থ্রি-হুইলার্স লিমিটেডের খালেদুর রহমান জুয়েল। ডিসেম্বর মাসে মহরতের মাধ্যমে ‘অপারেশন সুন্দরবন’ সিনেমার শুটিং শুরু হবে বলে জানানো হয়।

ছবিটি নিয়ে আশাবাদী নির্মাতা দীপঙ্কর দীপন। তিনি বলেন: ‘ঢাকা অ্যাটাক’ মুভি করার জন্য যখন র‌্যাবের বর্তমান ডিজি বেনজীর স্যার ডিএমপির পরিচালক ছিলেন- তার অনুপ্রেরণায় ‘ঢাকা অ্যাটাক’ নির্মিত হয়েছিল। এবারও তারই তত্ত্বাবধায়নে ‘অপারেশন সুন্দরবন’ ছবিটি নির্মিত হচ্ছে।

নির্মাতা জানান, সিনেমাটির গল্পের জন্য প্রায় দেড় বছরব্যাপী সময় ধরে সুন্দরবনের জলদস্যু, প্রান্তিক জনগোষ্ঠী ও এর সাথে সংশ্লিষ্ঠ বিভিন্ন মানুষের জীবনযাত্রা নিয়ে গবেষণা করেছেন তিনি ও তার টিম।

কাস্টিং সম্পর্কে তিনি বলেন: গল্পের প্রয়োজন অনুযায়ী দুর্দান্ত একটি মাল্টিকাস্ট পেয়েছি এই সিনেমায়। রিয়াজ ভাই প্রায় ৪ বছর পর কোন ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হলেন। সিয়াম আর ফারিয়া প্রথমবারের মত জুটি হয়ে কাজ করছেন। রোশানের বিপরীতে একটি সারপ্রাইজ কাস্ট অপেক্ষা করছে। ছোট পর্দায় মেধাবী মনোজ প্রামানিক আর ভীষণ সম্ভাবনাময়ী সামিনা বাশার আছে। অনেক চরিত্রের এই ছবিতে আরো অনেক অসাধারণ অভিনয়শিল্পী যুক্ত বলে আশা করছি।

সামনে আছে মহড়া, র‌্যাব ট্রেনিং সেন্টারে ট্রেনিং- ফিল্ড ভিজিট। অনেক কিছু আছে। ছবিটি ভাল করার জন্য কোন কিছু কমতি রাখবো না আমরা। বাঘসহ অন্যান্য পশুপাখির অ্যানিমেশনে আন্তজার্তিক মানের টেকনিক ব্যাবহার করবো আমরা-এমনটাই জানান দীপন।

‘অপারেশন সুন্দরবন’-এ যুক্ত হওয়া প্রসঙ্গে চিত্রনায়ক রিয়াজ বলেন: এই ছবিটির সাথে যুক্ত হওয়ার অনেক কারণ আছে। যেমন পরিচালক, প্লট, আইন শৃঙ্খলাবাহিনী ও চরিত্র। সব মিলিয়ে এটি একটি স্পেশাল ছবি হবে। সিয়াম বলে, চরিত্রটি আমার খুব পছন্দ হয়েছে। তার চরিত্রটি একজন মেজরের, যে র‌্যাবের একটি বাহিনী প্রধান।

নুসরাত ফারিয়া বলেন: ‘ঢাকা ২০৪০’ এর কাজের অভিজ্ঞতা আমাকে এই ছবিতে কাজ করে আগ্রহী করেছে। আর এটা আমার প্রথম ছবি যেটায় দেশ প্রেম বড় একটি ভূমিকা রেখেছে। রোশান বলেন , পরিচালক দীপংকর দীপনের সাথে কাজ করার আগ্রহ ও ডিফেন্স চরিত্রের কারণে এই ছবিটি আমার জন্য স্পেশাল। তাসকীন রহমান বলেন: আমি বিশ্বাস করি পরিচালক দীপংকর দীপন খারাপ ছবি বানাতে শিখেন নাই আর তিনি আমার জন্য সব সময় স্পেশাল কিছু ভাবেন। কেন সিনেমা নিয়ে আপনি উত্তেজিত এই প্রশ্নের উত্তরে মনোজ বলেন: চরিত্রই আমাকে টেনেছে। গল্পের কারণে চরিত্রটি বলতে পারছি না। তবে এটা অসাধারণ।

অনুষ্ঠানে সভাপতি ছিলেন র‌্যাব ডিজি ড. বেনজীর আহমেদ। তিনি বলে র‌্যাবের সদস্যরা সুন্দরবনে কী অপরিসীম কষ্ট করেছেন- তা দেখার জন্য দীপন ৪-৫ বার সুন্দরবন গেছেন। ও জানে সুন্দরবনকে জলদস্যু মুক্ত করা কী ভীষণ কঠিন ছিল। আমার বিশ্বাস ও ভাল সিনেমা বানাবে যেটা ব্লকবাস্টার হবে।