চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ব্রেক্সিট পেছাতে রাজি ইইউ নেতারা

২০২০ সালের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত ব্রেক্সিট পেছাতে রাজি হয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ (ইইউ)। ফলে আগামী বৃহস্পতিবার ব্রিটেনের ব্রেক্সিট ত্যাগ করার যে কথা ছিল তা আপাতত হচ্ছে না।

ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্ক বলেন, এর ভেতরে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট চুক্তি পাস হয়ে গেলে এই সময়সীমার যেকোনো সময় ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যেতে পারবে ব্রিটেন।

সোমবার ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্ক এক টুইট বার্তায় এ তথ্য জানিয়েছেন।

টুইটে বলা হয়েছে, ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের সম্মেলন যুক্তরাজ্যের একটি তথাকথিত ‘ফ্লেক্সটেনশন’ অর্থাৎ ব্রেক্সিট নিয়ে যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে যে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে, সেটি দূর করার জন্য প্রক্রিয়াটির বিলম্বে সম্মত হয়েছে। তবে এর ভেতরে তাদের (যুক্তরাজ্য) অচলাবস্থা কেটে গেলে তারা বেরিয়ে যেতে পারে ইইউ থেকে।

ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রেসিডেন্ট ডেভিড সাসোলি বলেন, সময় বাড়ানোটা খুব ইতিবাচক এবং যুক্তরাজ্যে কী চায় তা বোঝার জন্য সময় দেয়া দরকার।

বিজ্ঞাপন

ব্রেক্সিট ইস্যুতে আগামী ১২ ডিসেম্বর যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচনের ঘোষণা দেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

তিনি বলেন: ১২ ডিসেম্বর যদি নির্বাচনে সংসদ সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন তাহলে তাদেরকে ব্রেক্সিট চুক্তি নিয়ে বিতর্ক ও তদন্তের জন্য আরও সময় পাবে।

এদিকে বিরোধী শিবির লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির পক্ষ থেকে আগামী ৯ ডিসেম্বর আগাম নির্বাচনের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

এর আগে ব্রিটিশ আইনপ্রণেতাদের চাপের মুখে পড়ে বাধ্য হয়ে ইইউয়ে ব্রেক্সিট পেছানোর আবেদন করেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।
যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেয়ার পর ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বাইরে যাওয়ার জন্য ৩১ অক্টোবরের যে সময়সীমা ছিল তা ব্রিটিশ পার্লামেন্টে সমর্থন না পাওয়ায় এমন ঘোষণা দিয়েছিলেন বরিস জনসন।
শেয়ার করুন: