চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ব্যারিস্টার আসিফের মৃত্যু: স্ত্রীসহ চারজনকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার আসিফ ইমতিয়াজ খান জিসাদের মৃত্যুর ঘটনায় তার স্ত্রী সাবরিনা শহীদ নিশিতাসহ চারজনকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

নিশিতা ছাড়া অন্যরা হলেন, আসিফ ইমতিয়াজের শ্বশুর এ এস এম শহিদুল্লাহ মজুমদার, শাশুড়ি রাশেদা শহীদ ও শ্যালক সায়মান শহীদ নিশাত। আগামী ১৫ নভেম্বরের মধ্যে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে তাদের আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আসামিদের করা আগাম জামিন আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. হাবিবুল গনি ও বিচারপতি মো. রিয়াজ উদ্দিন খানের হাইকোর্ট বেঞ্চ বুধবার এই আদেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. ওজি উল্লাহ। অপর পক্ষে ছিলেন আসিফের বাবা আইনজীবী শহীদুল ইসলাম খান। যিনি সিরাজগঞ্জ-৫ (বেলকুচি-কামারখন্দ) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য। আর রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক ও বি এম আবদুর রাফেল।

ব্যারিস্টার আসিফ ইমতিয়াজ খান জিসাদের মৃত্যুর ঘটনায় প্রথমে একটি অপমৃত্যুর মামলা হলেও পরবর্তীতে পারিপার্শ্বিক ঘটনা বিবেচনায় নিয়ে দণ্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারায় আসিফের বাবা বাদী হয়ে মামলা করেন। যেখানে আসিফের স্ত্রী সাবরিনা শহীদ নিশিতা, তার বাবা এএসএম শহিদুল্লাহ মজুমদার, মা রাশেদা শহীদ এবং ছোট ভাই সায়মান শহীদ নিশাতকে আসামি করা হয়।

গত ১৭ সেপ্টেম্বর ঢাকার মহানগর হাকিম সাদবীর ইয়াছির আহসান চৌধুরীর আদালতে মামলাটি করার পর আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ শেষে কলাবাগান থানার ওসিকে অভিযোগটি নিয়মিত মামলা হিসেবে গ্রহণের নির্দেশ দেন।

৩৩ বছর বয়সী আসিফ গত ১১ সেপ্টেম্বর কাঁঠালবাগানের ফ্রি স্কুল স্ট্রিটে শ্বশুরবাড়ির নবমতলার বারান্দা থেকে ‘লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেছেন’ বলে তার স্ত্রীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন দাবী। আর আসিফের বাবার দাবী তার ‘ছেলেকে মেরে ফেলা হয়েছে।’