চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কোহলি পারেননি, বেসামাল ভারতকে টানলেন পূজারা

একদিনের ক্রিকেট তিনি খেলেন না, আইপিএলেও দল পান না। তাতে কোনো অসুবিধা নেই। যেটা খেলেন, অর্থাৎ টেস্ট ক্রিকেট, সেটাই মন দিয়ে খেলেন এবং ত্রাতা হয়ে দাঁড়িয়ে যান। বাকি ব্যাটসম্যানদের মতো এদিন চেতেশ্বর পূজারা যদি ব্যর্থ হতেন, তাতে ভারতের একটি দুর্দশার দিনই কাটত।

চার বছর আগে অ্যাডিলেডে দু’ইনিংসে জোড়া শতরান করে ভারতকে প্রায় জিতিয়েই দিচ্ছিলেন বিরাট কোহলি। মনে করা হচ্ছিল এবার ‘দুর্বল’ অস্ট্রেলিয়াকে হয়ত হেলায় হারাবে ভারত! কিন্তু শুরুটাই হল বিপরীত। ব্যর্থ হলেন বিরাট কোহলি (৩)। অজি বোলারদের দাপটের সামনে ভেঙে পড়ল ভারতীয় ব্যাটিংও। সফরকারীদের ত্রাতা হয়ে থালেন শুধুই চেতেশ্বর পূজারা।

বিজ্ঞাপন

টসে জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিতে বেশি দেরি করেননি কোহলি। কিন্তু ১০ ওভারের মধ্যেই ভারতের স্কোর হয়ে যায় ৩ উইকেটে ১৯। খোঁচা দিয়ে ফিরে যান কোহলি স্বয়ং। ক্রিজে তখন আগুন ছোটাচ্ছেন স্টার্ক, হ্যাজেলউড, কামিন্সরা। পরের ১০ ওভার কিছুটা থিতু হলেও, ২০তম ওভারে আবার পতন। ফিরে যান আজিঙ্কা রাহানে (১৩)। ভারতের স্কোর হয়ে যায় ৪ উইকেটে ৪১। দুই ওপেনার লোকেশ রাহুল ২ ও মুরালি বিজয় ফেরেন ১১ রান করে।

যদি সবুজ পিচে পেসারদের সামনে ভারতের লাগাতার উইকেট পতন হত, সেটা মানার মতো! শুরুতে তাদের চার ব্যাটসম্যানই যে স্ট্রোক খেলতে গিয়ে আউট হয়েছেন। পরে একইকাজ করেন রোহিত শর্মাও।

বিজ্ঞাপন

শেষ টেস্ট খেলেছিলেন বছরের শুরুতে সাউথ আফ্রিকায়। টেস্ট দলে প্রত্যাবর্তন করে খুবই ভালো খেলছিলেন রোহিত (৩৭)। একদিনের ফর্মটাই টেস্টে নিয়ে এসেছিলেন। স্টার্ককে অবলীলায় ছয়ও মারতে শুরু করেন। কিন্তু নাথান লায়নকে ছয় মারতে গিয়ে খোঁচা লাগে ব্যাটে। ক্যাচ ধরেন অভিষিক্ত মার্কাস হ্যারিস। একশো পেরোনোর আগেই ৫ উইকেট যায় ভারতের। তারপরেই অবশ্য ছোটোখাটো প্রত্যাবর্তন শুরু করে সফরকারীরা।

প্রথমে রিশভ পান্ট (২৫), পরে রবীচন্দ্রন অশ্বিন (২৫) এবং টেলএন্ডারদের নিয়ে দুর্দান্ত একটা ইনিংস খেলেন পূজারা। টেস্ট ক্যারিয়ারের ১৬তম শতরান তুলে নেন। সেই সঙ্গে ছুঁয়ে ফেলেন ৫০০০ টেস্ট রানও।

শতরানের পরে আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠেন পূজারা। তার ব্যাট থেকে আসে ছক্কাও। ভারতকে আড়াইশো রানের গণ্ডি পার করে দেয়ার পরেই অবশ্য রানআউট হয়ে যান। এমনভাবে খেলছিলেন যে, একমাত্র রানআউট ছাড়া তাকে আউট করা যেত না। সাত চার ও দুই ছক্কায় ১২৩ রান করেন পূজারা।

ভারত শেষ পর্যন্ত অলআউট হয়নি। এক উইকেট হাতে রেখে প্রথমদিন শেষ করেছে ২৫০ রানে। ৬ রানে অপরাজিত মোহাম্মদ সামি। ২.১ ওভার বাকি থাকতে শেষ হয় দিনের খেলা। অজিদের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন স্টার্ক, হ্যাজেলউড, কামিন্স ও লায়ন।

Bellow Post-Green View