চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ব্যক্তিশ্রেণির করমুক্ত আয়ের সীমা বাড়েনি, কমেছে কর্পোরেট করহার

ব্যক্তিশ্রেণির করমুক্ত আয়ের সীমা বাড়েনি ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে। তবে করোনা পরিস্থিতির কারণে এবারের বাজেটে কর্পোরেট কর হার আরও কমানোর প্রস্তাব দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বিদ্যমান ৩২ দশমিক ৫০ শতাংশ থেকে ২ দশমিক ৫০ শতাংশ কমিয়ে নতুন কর্পোরেট করহার ৩০ শতাংশ নির্ধারণের প্রস্তাব করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপনকালে এই প্রস্তাব দেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

জাতীয় সংসদে আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেট পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এবারের বাজেটের পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়েছে ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোট টাকা। যা দেশের মোট জিডিপির ১৭ দশমিক ৪৭ শতাংশ।

এই বাজেটে ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ১৪ হাজার ৬৮১ কোটি টাকা। যা মোট জিডিপির ৬ দশমিক ২ শতাংশ। অর্থাৎ মোট বাজেটের এক তৃতীয়াংশই ঘাটতি ধরা হয়েছে। যা চলতি (২০২০-২১) অর্থবছরের ঘাটতির চেয়ে ২৭ হাজার ২৩০ কোটি টাকা বেশি।

বিজ্ঞাপন

কর্পোরেট করহার কমানোর বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ২০২০ সালের অর্থ আইনে কর্পোরেট করহার ৩৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৩২ দশমিক ৫০ শতাংশ করা হয়েছিল। ২০২১-২০২২ অর্থ বছরে কর্পোরেট করহার আরও কমিয়ে নন-লিস্টেড কোম্পানিসমূহের ক্ষেত্রে করহার ৩২ দশমিক ৫০ শতাংশ থেকে ৩০ শতাংশ করার প্রস্তাব করছি। অনুরূপভাবে লিস্টেড কোম্পানির জন্য করহার ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২২ দশমিক ৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করছি। দেশের বাণিজ্য ও শিল্পায়নের প্রসারের জন্য কর্পোরেট করহার কমানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

এছাড়া এক ব্যক্তি কোম্পানির জন্য নন-লিস্টেড কোম্পানির করহার ৩২ দশমিক ৫ শতাংশ রাখার প্রস্তাব দিয়ে তিনি বলেন, অর্থনীতিকে অধিকতর আনুষ্ঠানিক করা এবং এক ব্যক্তি কোম্পানির প্রতিষ্ঠা উৎসাহিত করার লক্ষ্যে এক ব্যক্তি কোম্পানির করহার ২৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করছি।

এছাড়া ব্যক্তিশ্রেণির ব্যবসায়ীদের করদাতাদের করহার কমানো হয়েছে। তাদের বার্ষিক টার্নওভার করহার শুন্য দশমিক ৫ শতাংশ থেকে অর্ধেক কমিয়ে শুন্য দশমিক ২৫ শতাংশ নির্ধার করা হয়েছে।

তবে ব্যক্তিশ্রেণির করমুক্ত আয়ের সীমা বাড়েনি এবারের বাজেটে। চলতি অর্থবছরের মতই ৩ লাখ টাকা রাখা হয়েছে ব্যক্তিশ্রেণির করমুক্ত আয়ের সীমা।