চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বৈরী আবহাওয়াতেও পর্যটকে মুখরিত কক্সবাজার সৈকত

সাগরে সৃষ্ট লঘুচাপে বৈরী আবহাওয়াকে উপেক্ষা করে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে নেমেছে পর্যটকের ঢল।  লাখো পর্যটকদের পদভারে মুখরিত এখন সৈকত। ঈদুল আজহার ছুটি কাটাতে সাগর সৈকতে ভিড় করছে পর্যটকরা।

সাগরের নীলজল রাশিতে উচ্ছ্বাসে মেতেছে আগত পর্যটকরা। থেমে থেমে চলা বৃষ্টি আগত পর্যটকদের উচ্ছ্বাস কমাতে পারছে না কিছুতেই। পর্যটকদের নিরাপত্তায় নেয়া হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। কোন পর্যটক ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হলে দ্রুত যেন চিকিৎসা পায় সে ব্যবস্থা ও রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ঈদের ছুটি কাটাতে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারে ভিড় করছেন লাখো পর্যটক। সাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের কারণে কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরকে ৩ নং স্থানীয় সর্তক সংকেত দেয়া হয়েছে। ফলে থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে। কিন্তু এসব কিছু উপেক্ষা করে সৈকতের সব পয়েন্টে যেন পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়।

এ বৃষ্টি পর্যটকের তেমন কোন সমস্যা হচ্ছে না। বরং এ বৃষ্টিতে আবার অনেকে বাড়তি আনন্দও পাচ্ছে। সমুদ্র সৈকত ছাড়াও ইনানীর পাথুরে সৈকত, পর্যটন স্পট দরিয়ানগর, হিমছড়ি, ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক, রামুর বৌদ্ধ মন্দির ও পর্যটকে মুখরিত।

নগরজীবনের যান্ত্রিকতা থেকে দূরে নীলসাগরের সুনীল জলরাশিতে অবিরত ঢেউ এর মাঝে বাঁধভাঙ্গা আনন্দে মেতেছেন ভ্রমণ পিপাসুরা। তাদের উল্লাসে যেন মুখরিত বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত।

বিজ্ঞাপন

ঈদের ছুটিতে সৈকতে আসা চট্টগ্রামের নাজিরহাটের শিক্ষক পরিমল বলেন, ছুটি পেয়ে পরিবার নিয়ে আসলাম। এখানে এসে অনেক ভালো লাগছে।

কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান জানান: ‘সাগরে লঘুচাপ সৃষ্টির কারণে কক্সবাজারসহ ৪ সমুদ্র বন্দরকে ৩ নং স্থানীয় সর্তক সংকেত দেয়া হয়েছে।’

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশসুপার মো.ইকবাল হোসাইন বলেন: ‘ঈদের ছুটিতে পর্যটকরা যাতে স্বাচ্ছন্দ্যে ভ্রমণ করতে পারে সেই লক্ষ্যে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। কক্সবাজারের প্রতিটি পর্যটন স্পটে সাদা পোশাকের পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন: ‘কক্সবাজারের ৫ শতাধিক হোটেল মোটেল ও গেস্ট হাউজে ৩ লক্ষাধিক পর্যটকের ধারণ ক্ষমতা রয়েছে। পর্যটকদের সমুদ্র স্নানে নিরাপত্তা দিতে পুলিশের পাশাপাশি ৩টি বেসরকারি লাইফ গার্ড সংস্থার অর্ধশতাধিক প্রশিক্ষিত লাইফগার্ড কর্মী নিয়োজিত আছে।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো.কামাল হোসেন বলেন: আগত পর্যটকদের হয়রানি রোধে তিনটি ভ্রাম্যমান আদালতের টিম সৈকত ও আশপাশের এলাকায় কাজ করছে। সে সাথে কোন পর্যটক ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হলে দ্রুত যেন চিকিৎসাপায় সে ব্যবস্থা ও রয়েছে।’

Bellow Post-Green View