চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বেল-জিদান: যেন দুজনার দুটি পথ ‘চিরতরে’ গেছে বেঁকে

দূরত্ব আগে থেকেই ছিল, করোনার কারণে তিন মাসের বিরতিও ভাঙতে পারেনি গ্যারেথ বেল ও জিনেদিন জিদানের সেই দূরত্ব দেয়াল! রিয়াল মাদ্রিদ কোচের রণকৌশলে ওয়েলস ফরোয়ার্ডের জায়গা যে খুবই কম, প্রমাণ হয়ে গেছে রোববার এইবারের বিপক্ষে ম্যাচেও।

তিন মাস বিরতির পর এইবারের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরেছে স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ। ৪-০ গোলের জয় দিয়ে শুরুটা হয়েছে দারুণ। ম্যাচের শুরুতে একাদশে ছিলেন না বেল, নেমেছেন দ্বিতীয়ার্ধের পর। নেমে দেখাতে পারেননি ঝলক।

বিজ্ঞাপন

অবশ্য করোনা বিরতির পর অনুশীলনে বেশ চনমনেই ছিলেন বেল। ধারণা করা হচ্ছিল এবার বুঝি মৌসুমের শুরুর অনুজ্জ্বলভাবটা দূর হবে। কিন্তু শুরুর একাদশে সাইডবেঞ্চে বসে নিশ্চয় হতাশ হয়েছেন, নয়তো এতটা হতাশাজনক পারফরম্যান্সই বা কেন করবেন?

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

মাঠে নামার আগে ওয়ার্মআপে গম্ভীর ছিলেন, দেখেই বোঝা গেছে কোচের সিদ্ধান্ত পছন্দ হয়নি। সেটির প্রভাবই হয়তো পড়েছে মাঠের খেলায়।

কুলিং ব্রেকের সময়ও কোচের সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায়নি বেলকে। ভাষাগত দূরত্ব যেমন একটা সমস্যা, তেমনি একে অপরকে বোঝার চেষ্টা না করাটা দিন দিন ফাটল ধরাচ্ছে দুপক্ষের সম্পর্কেও।

জিদান যে তার দলে বেলকে চান না সেটা একপ্রকার ওপেন সিক্রেট। কোনো ক্লাব ওয়েলস ফরোয়ার্ডকে কিনতে না চাওয়ায় আরেকটা মৌসুম হয়তো বেলকে মাদ্রিদেই কাটাতে হবে। যদিও তিনি ক্লাব ছাড়তে চান না। আর ক্লাবও মনে করে দলকে এখনো কিছু দেয়ার আছে তার।

কিন্তু জিদানের মনে ঠাঁই না পেলে কীভাবে নিজেকে আবারও প্রমাণ করতে পারবেন বেল! কোচের সঙ্গে সম্পর্কটা জোরদার করতে না পারলে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে থাকা একপ্রকার অসম্ভবই তার জন্য!