চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিয়েতে রাজি না হওয়ায় প্রেমিকের গায়ে প্রেমিকার এসিড

বিয়ে করতে রাজি না হওয়ায় প্রেমিকের গায়ে এসিড ঢেলে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে দিল্লির এক তরুণীর বিরুদ্ধে। ভারতের রাজধানীর বিকাশপুরী এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে দিল্লি পুলিশ।

এনডিটিভি জানিয়েছে, গত ১১ জুন পুলিশের কাছে কেউ একজন ফোন করে জানায় যে, বিকাশপুরীতে এক যুগলের ওপর এসিড হামলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ দেখতে পায়, এসিড লেগে মেয়েটির শুধু হাতে হালকা ক্ষত হলেও ছেলেটির মুখ, ঘাড় ও বুকে মারাত্মক রকম দগ্ধ হয়েছে। সাথে সাথে তাদেরকে হাসপাতালে নেয়া হয়।

হামলাটা আসলে কে করেছে, গত বেশ কয়েকদিন ধরে খোঁজখবর করেও কোনো কূলকিনারা করতে পারেনি পুলিশ। ছেলেমেয়ে দু’জনই বলছিলেন, তারা মোটরসাইকেলে করে যাওয়ার সময় রাস্তা থেকে তাদেরকে লক্ষ্য করে কেউ এসিড ছুড়ে মেরেছিল।

কিন্তু তদন্তের মোড় ঘুরে গেল ছেলেটির একটি কথায়।

বিজ্ঞাপন

পুলিশের প্রশ্নে এক সময় ওই ব্যক্তি জানান, ঘটনার দিন বাইকের পেছনে বসা থাকা অবস্থায় প্রেমিকা তাকে অনুরোধ করেছিলেন হেলমেটটি খোলার জন্য। হেলমেটের জন্য ‘ঠিকমতো স্পর্শ করতে পারছিলেন না’ বান্ধবী তাকে।

হেলমেট খোলার কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই এসিড হামলার ঘটনাটি ঘটে।

এ তথ্যটিকে একটি গুরুত্বপূর্ণ সূত্র হিসেবে ধরে নিয়ে হালকা দগ্ধ হওয়া বান্ধবীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে পুলিশ। টানা কয়েক ঘণ্টার জিজ্ঞাসাবাদের মুখে এক পর্যায়ে অপরাধ স্বীকার করেন ওই তরুণী। জানান, তিনিই মোটরসাইকেলের পেছন থেকে এসিড ঢেলে দিয়েছিলেন প্রেমিকের ওপর।

দিল্লি পুলিশের (পশ্চিম) উপ কমিশনার মনিকা ভারদ্বাজ বা্তা সংস্থা আইএএনএস’কে বলেন, ‘ওই যুগলের মধ্যে তিন বছরের বেশি সময় ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। কিছুদিন আগে ছেলেটি সম্পর্ক শেষ করে দেয়ার কথা বলেন। কিন্তু মেয়েটি তারপরও চাইছিলেন তাকেই বিয়ে করতে। তাই প্রতিশোধ হিসেবে এসিড ছুড়ে প্রেমিকের মুখ বিকৃত করে দেয়ার পরিকল্পনা করেন তিনি।’

পুলিশ জানায়, ওই নারী ঘর পরিষ্কার করার কেমিক্যালের একটি ছোট বোতল তার ব্যাগের ভেতর লুকিয়ে রেখেছিলেন। সুযোগ করে সেটিই ঢেলে দেন প্রেমিকের গায়ে।

অভিযুক্ত তরুণীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় আরও তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।