চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘বিয়েই করিনি, তাই ডিভোর্সের প্রশ্নই উঠে না’

সম্পর্কের জটিলতা নিয়ে বেশ কয়েকদিন ধরেই আলোচনায় পশ্চিম বঙ্গের জনপ্রিয় নায়িকা ও নেত্রী নুসরাত জাহান। গুঞ্জন ছিলো, স্বামী নিখিল জৈনের সাথে সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। শুধু তাই নয়, তাদের মধ্যে বিচ্ছেদেরও কথা শোনা যাচ্ছিলো। এ বিষয়ে শুরু থেকেই চুপ ছিলেন নায়িকা নুসরাত।

এবার নিজের সম্পর্ক ও বিচ্ছেদের গুঞ্জন নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করে আলোচনায় এই নায়িকা। বললেন, নিখিল জৈনকে তিনি বিয়েই করেননি, তাই ডিভোর্সের প্রশ্নই আসে না!

বিজ্ঞাপন

২০১৯ সালের ১৯ জুন নিখিল জৈনের সঙ্গে ধুমধাম অনুষ্ঠান করে বিয়ে সেরেছিলেন নুসরাত। দু-বছরের মাথায় কী এমন হলো যে, সেই বিয়েকে অস্বীকার করছেন এই নায়িকা।

বুধবার এই তারকা সাংসদ বলেন, ‘তুরস্কের বিবাহ আইন অনুসারে ওই বিয়েটা অবৈধ। তারউপর এটা যেহেতু হিন্দু-মুসলিম বিয়ে সেক্ষেত্রে বিশেষ বিবাহ আইন অনুসারে এই বিয়েতে স্বীকৃতি দরকার। সেটা হয়নি। ফলে এটা বিয়েই নয়’।

মিডিয়ায় বিবৃতি জারি করে নুসরাত আরও জানান, ‘আইনের চোখে এটাই বিয়েই নয়, বরং একটা রিলেশনশিপ বা বলা যায় লিভ ইন রিলেশনশিপ। তাই ডিভোর্সের প্রশ্নটাই উঠে না। আমারা বহুদিন আগেই আলাদা হয়ে গিয়েছি। তবে আমি এই নিয়ে কিছু বলতে চাইনি। কারণ আমার ব্যক্তিগত জীবনটা আমি ব্যক্তিগতই রাখতে চেয়েছিলাম। তাই আমি কী করছি, সেটা ওই বিচ্ছেদের উপর ভিত্তি করে নির্ভরশীল নয়। আমাকে নিয়ে সংবাদমাধ্যমের বা অন্য যে কারোর প্রশ্ন তোলাটা সাজে না। এই বিয়েটা আইন সম্মত নয়, বৈধ এবং কার্যকর নয়’।

নুসরাতের দীর্ঘ এক পাতার বিবৃতিতে একবারও নিখিলের নাম উল্লেখ করেননি অভিনেত্রী। কখনও ‘সামওয়ান’, কখনও ‘এনিওয়ান’ আবার ‘রিচ গাই’ হিসেবে সম্বোধন করেছেন নিখিল জৈনকে।

বিয়ের বৈধতা নিয়ে কথা বলা ছাড়াও নিখিলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, তিনি আমার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা নিয়েছেন। রাতেরবেলা অদ্ভুত সময়ে টাকা নিয়েছেন বিচ্ছেদ হওয়ার পরেও। আমি ইতিমধ্যেই ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে বিষয়টা জানিয়েছি। খুব তাড়াতাড়ি পুলিশেও অভিযোগ দায়ের করব।

অভিনেত্রীর দাবি, তার এবং পরিবারের অনেকেরই ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নিখিল দেখাশোনা করতেন। নুসরাতের অজান্তে এবং কোনওরকম অনুমতি না নিয়েই তার টাকা ভুল ভাবে ব্যবহার করেছেন নিখিল। পাশাপাশি নুসরাতের নিজস্ব গয়না সহ দামি জিনিষপত্র নাকি নিখিল ও তার পরিবার আটকে রেখেছে।

এমন গুরুতর অভিযোগ নিয়ে পরবর্তীকে মুখ খুলেন নিখিল। পরিষ্কারভাবে জানান, ‘আমি কোনওদিন মন্তব্য করব না উনার (নুসরাত) এই অভিযোগ নিয়ে। কারণ এই বিষয়টি আদালতে বিচারাধীন। কোর্টে সিভিল স্যুট দাখিল করা রয়েছে। এবং আইনজীবীরা তাদের কাজ করছেন’।

গহনা আটকে রাখা নিয়ে পালটা প্রশ্ন করা হলে নিখিল বলেন, ‘ওই সব নিয়ে আমি কিছু বলতে চাই না। আপনারা সবাই জানেন আমি ওর জন্য কী করেছি না করেছি, তাই এই অভিযোগ নিয়ে কিছু বলবার নেই। কোর্টে যা ফাইল করবার আমি সেটা করে দিয়েছি’।

গত মার্চ মাসে নিখিল জৈন নুসরাতের বিরুদ্ধে আলিপুর আদালতে দেওয়ানি মামলা দায়ের করেছেন। আগামী মাসের ২০ তারিখ এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য রয়েছে।

বিজ্ঞাপন