চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিহারে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ‘অজ্ঞাত কারণে’ মৃত্যু ৭৫ হাজার

চলতি বছরের প্রথম পাঁচ মাসেই ভারতের বিহারে ৭৫ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এগুলোকে ‘অজ্ঞাত কারণে’ মৃত্যু বলে উল্লেখ করেছে কর্তৃপক্ষ। তবে সন্দেহ করা হচ্ছে, এই মৃত্যুগুলোর সঙ্গে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ের সম্পর্ক রয়েছে।

এনডিটিভি তাদের এক প্রতিবেদনে বলছে, এই সংখ্যা রাজ্য সরকারের দেওয়া করোনা মহামারিতে মৃত্যুর সংখ্যার ১০ গুণ বেশি। প্রশ্ন উঠেছে, রাজ্যটি কি মৃতের সংখ্যা কমিয়ে বলেছে?

জানা গেছে, ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে মে মাসের মধ্যে ১ লাখ ৩০ হাজার মানুষ প্রাণ হারায় বিহারে। ২০২১ সালে এই সময়ে সেই সংখ্যাটা হয় ২ লাখ ২০ হাজার। মানে পার্থক্য তৈরি হয়েছে ৮২ হাজার ৫০০ জনে। এই ৬২ শতাংশ বৃদ্ধির অর্ধেকের বেশি দেখা গেছে এই বছরের মে মাসে।

বিহারের করোনার সরকারি তথ্য মতে, ২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে মে মাসে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছে ৭ হাজার ৭১৭ জন।  এই মাসের শুরুতে রাজ্য সেখানে ৩ হাজার ৯৫১ জনের মৃত্যুর তথ্য যোগ করে।

বিজ্ঞাপন

যদিও কর্তৃৃপক্ষ এসব মৃত্যুর ঘটনা কখন ঘটেছে সেই তথ্য নিশ্চিত করেনি, তবে ধারণা করা হচ্ছে তা ২০২১ সালেই হয়েছে।

তবে সিভিল রেজিস্ট্রেশন সিস্টেমের দেখানো মৃতের সংখ্যার একটি অংশ মাত্র সরকারিভাবে বলা করোনায় মৃতের সংখ্যা। পার্থক্যটা ৭৪ হাজার ৮০৮ জনের।

এখন প্রশ্ন দাঁড়ায়, রাজ্য কি এখনও করোনায় মৃতের সংখ্যা লুকাচ্ছে? এর আগে মধ্য প্রদেশ, অন্ধ্র প্রদেশ, তামিল নাড়ু, কর্নাটক ও দিল্লীতেও করোনায় মৃতের সংখ্যা কমানোর চেষ্টা দেখা যায়।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত ভারত। বেড়েছে মৃত্যু ও হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা। মেডিকেল সেবার অপ্রতুলতা পরিস্থিতি আরও খারাপ করেছে।

বিজ্ঞাপন