চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সম্মিলিত ভ্যাকসিন কর্মসূচিতে থাকবে না যুক্তরাষ্ট্র

সবার জন্য করোনা ভ্যাকসিনের বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আন্তর্জাতিক উদ্যোগে অংশ নিচ্ছে না মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

মঙ্গলবার হোয়াইট হাউস থেকে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন তৈরি ও বিতরণের আন্তর্জাতিক উদ্যোগে অংশ নেবে না। কারণ এই উদ্যোগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও চীন জড়িত।

বিজ্ঞাপন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এমন এক কঠিন সময়ে ১৭০টি দেশের উদ্যোগ থেকে বাইরে থাকছে, যখন দেশটি শীর্ষ করোনা আক্রান্ত দেশ এবং যেখানে ৬২ লক্ষাধিক মানুষ করোনা রোগী। আর মারা গেছে ১ লাখ ৮৮ হাজারের অধিক মানুষ। সারাবিশ্বের জন্য একটি কার্যকর ভ্যাকসিনের লক্ষ্যে কাজ করা এ উদ্যোগে যুক্তরাষ্ট্র বিচ্ছিন্ন থাকার কথা বলছে।

বিজ্ঞাপন

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জুড ডিয়ারে এক বিবৃতিতে বলেছেন, করোনাভাইরাসকে পরাজিত করতে যুক্তরাষ্ট্র আন্তর্জাতিক অংশীদারদের সাথে সম্পৃক্ত থাকবে। তবে দুর্নীতিগ্রস্ত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং চীন কর্তৃক বহুপাক্ষিক সংস্থাগুলোর দ্বারা উদ্যোগে আমরা সম্পৃক্ত থাকতে চাই না।

যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের তৈরি ভ্যাকসিন সকলের জন্য বিনামূল্যে নিশ্চিত করতে কাজ করছে বলেও জানানো হয় বিবৃতিতে।

বিজ্ঞাপন

কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন পাওয়া গেলে তা সবার জন্য ফ্রি করা যায় কিনা, বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্র সরকারও ভেবে দেখছে বলে জানান ডোনাল্ড ট্রাম্প। চলতি বছরের শেষ দিকে কার্যকরী ভ্যাকসিন হাতে পাওয়ার ব্যাপারেও আশাবাদ প্রকাশ করেছেন করোনায় পর্যুদস্ত দেশটির প্রেসিডেন্ট।

প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কারে ওষুধ প্রস্তুতকারক জায়ান্ট কোম্পানি গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লাইনের সাবেক এক প্রধানকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কারের এই অভিযানকে যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসন নাম দিয়েছে ‘অপারেশন ওয়ার্প স্পিড’।

ট্রাম্প বলেছেন, শিগগিরই আমরা একটা ভ্যাকসিন পেতে যাচ্ছি। ‘অপারেশন ওয়ার্প স্পিড’ শুরু হয়েছে। এর অর্থ বিশাল আয়োজন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পারমাণবিক প্রকল্পের পর এত বেশি বৈজ্ঞানিক বৈজ্ঞানিক, লজিস্টিক প্রচেষ্টা আমাদের দেশ আর দেখেনি।

“বছরের শেষ নাগাদই আমরা এটা পেতে পারি। আমি মনে করি, খুব দ্রুত সময়ের মধ্যেই আমরা কিছু ভালো খবর পাব।”- বলেন ট্রাম্প।

তবে দেশটি বলছে, তারা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সম্মিলিত উগ্যোগে না থেকে নিজস্ব উদ্যোগে করোনা ভ্যাকসিন সবার জন্য সহজলভ্য করবে।

জুলাই মাসে ট্রাম্প প্রশাসন জাতিসংঘকে স্পষ্ট জানিয়ে দেয় যে, তারা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে সদস্যপদ প্রত্যাহার করে নিচ্ছে।যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাভাইরাসের সময় চীনের সঙ্গে আঁতাত করে দুর্নীতিতে জড়িয়েছে।