চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিশ্বে ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার দিন বেড়েই চলেছে

বিশ্বে ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার দিন বেড়েই চলেছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে এই উষ্ণ দিনের সংখ্যা বাড়ছে।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৯৮০-র দশকের পর থেকে প্রতি দশকে দৈনিক তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের সংখ্যা দ্বিগুণ হচ্ছে। পূর্বে হয়নি এমন নতুন স্থানেও তাপমাত্রা অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যাচ্ছে। এমন পরিস্থিতি জনমানবের স্বাস্থ্য এবং বেঁচে থাকার ওপর অপ্রত্যাশিত চ্যালেঞ্জ বয়ে আনছে বলছে বিবিসি।

আরও বলা হয়, ১৯৮০ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত প্রতিবছর গড়ে অন্তত ১৪ দিন ছিল ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার। তবে তার পরের দশ বছরে এমন দিনের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ বেড়ে ২৬ হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ পরিবর্তন ইন্সটিটিউটের সহযোগি পরিচালক ফ্রেড্রিক অটো বলছেন, জীবাশ্ম জ্বালানি পোড়ানোর জন্য তাপমাত্রা বৃদ্ধির এই হার শতভাগে চলে যেতে পারে।

তিনি বলছেন, জীবাশ্ম জ্বালানি পোড়ানো হ্রাস না করলে আরও অনেক জায়গায় ঘন ঘন এমন তীব্র তাপমাত্রার বাড়বে। অতএব এই বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

বিবিসি বলছে, সাধারণত মধ্যপ্রাচ্য এবং উপসাগরীয় এলাকায় ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপর তাপমাত্রার সৃষ্টি হয়। তবে সম্প্রতি ইতালিতে ৪৮ দশমিক ৮ এবং কানাডায় ৪৯ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস হয়েছে।এটিকে উদ্বেগজনক বলছেন পরিবেশ বিজ্ঞানীরা।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব জিওগ্রাফি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টের জলবায়ু গবেষক ড. সিহান লি বলেন, যতো দ্রুত জীবাশ্ম জ্বালানি হ্রাস করা যাবে ততোই আমাদের পৃথিবীর জন্য মঙ্গলজনক হবে।

ক্রমাগত পরিবেশ দূষণ চললে এবং এই বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ না করলে মানুষের জন্য এই বিশ্ব দুর্বিষহ হয়ে উঠবে বলছেন বিজ্ঞানীরা। তাই আগামীতে অনুষ্ঠেয় জাতিসংঘের পরিবেশ বিষয়ক সম্মেলনে এ বিষয়ে জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন পরিবেশ বিজ্ঞানীরা।