চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলার তথ্য সংরক্ষণে সামাজিক মাধ্যমকে নির্দেশ

দিল্লির জওহরলাল নেহেরু ইউনিভার্সিটিতে (জেএনইউ) ৫ জানুয়ারি হওয়া হামলা সংশ্লিষ্ট সব তথ্য-উপাত্ত সংরক্ষণ করে রাখতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপ এবং টেক জায়ান্ট গুগল ও অ্যাপলকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

এসব তথ্যের মধ্যে রয়েছে সিসিটিভি ফুটেজ, ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজসহ হামলা সংশ্লিষ্ট সব ধরনের ডেটা কনটেন্ট।

বিজ্ঞাপন

অমিত পরমেশ্বরণ, শুকলা সাওয়ান্ত এবং অতুল সুদ – বিশ্ববিদ্যালয়টির এই তিন অধ্যাপক মিলে আদালতের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন যেন এবং কনটেন্ট সংরক্ষণ করতে দিল্লি পুলিশ কমিশনার এবং রাজ্য সরকারকে যথাযথ নির্দেশনা দেয়া হয়।

এই তিন অধ্যাপক আবেদন জানান, ‘ইউনিটি এগেইনস্ট লেফট’ এবং ‘ফ্রেন্ডস অব আরএসএস’ এই দু’টি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের সব মেসেজ, ছবি, ভিডিও এবং গ্রুপ মেম্বারদের ফোন নাম্বারসহ হামলা সংশ্লিষ্ট সব তথ্য যেন উদ্ধার করা হয়।

সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতেই এই নির্দেশ দিলেন আদালত।

বিজ্ঞাপন

দিল্লি হাইকোর্ট রাজ্য পুলিশ এবং রাজ্য সরকারের কাছ থেকেও এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া চেয়েছেন বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

অবশ্য দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে, তারা জেএনইউ কর্তৃপক্ষকে ইতোমধ্যেই সিসিটিভি ফুটেজ এবং সংশ্লিষ্ট হোয়াটসঅ্যাপ ডেটা সংরক্ষণ করার কথা জানিয়ে চিঠি দিয়ে রেখেছে।

রাজ্য সরকারের স্ট্যান্ডিং কাউন্সেল (অপরাধ) রাহুল মেহতা এ বিষয়ে হাইকোর্টকে বলেন, পুলিশ চিঠি পাঠালেও এখনো কোনো জবাব দেয়নি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

মঙ্গলবার আবেদনের পরবর্তী শুনানির তারিখ দিয়েছেন আদালত।

৫ জানুয়ারির সন্ধ্যায় একদল মুখোশধারী জেএনইউ হাসপাতালের ক্যাম্পাসে ঢুকে তিনটি হোস্টেলের শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায়। ৩ ঘণ্টার বেশি ধরে চলা ওই ভয়াবহ হামলা ও মারধরে অন্তত ৩৪ জন শিক্ষার্থী আহত হন।

এ ঘটনায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করা হলেও এখন পর্যন্ত কেউ গ্রেপ্তার হয়নি।