চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিশেষ শিশুদের কল্যাণে বার্জার পেইন্টসের অনুদান

বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুদের কল্যাণে অনুদান দিয়েছে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটি ২০০৯ সাল থেকে প্রতিবছর ধারাবাহিকভাবে বিশেষভাবে সক্ষম শিশুদের কল্যাণে বিভিন্নভাবে অবদান রাখছে।

গতকাল অবিন্তা গ্যালারি অব ফাইন আর্টসে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বার্জার পেইন্টস বিশেষ শিশুদের কল্যাণে নিয়োজিত বাংলাদেশের বিভিন্ন সংস্থাকে অনুদান দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার প্রতিষ্ঠানটির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। তবে এসব শিশুর কল্যাণে কী পরিমাণ অনুদান দেয়া হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে তা উল্লেখ করা হয়নি।

এতে বলা হয়, অনুষ্ঠানে বিশেষ শিশুদের জন্য আয়োজিত চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া শিশুদের বিভিন্ন শিল্পকর্মগুলো নিয়ে প্রদর্শনীরও উদ্বোধন করা হয় এদিন।

এ বছর বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডের কাছ থেকে অনুদান প্রাপ্ত সংস্থাগুলো হলো: সিড (সোসাইটি ফর এডুকেশন অ্যান্ড ইনক্লুশন অব দ্য ডিসেবলড), অটিজম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন, সোসাইটি ফর দ্য ওয়েলফেয়ার অব অটিস্টিক চিলড্রেন, স্কলারস স্পেশাল স্কুল, প্রয়াস বিশেষায়িত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, আলোকিত শিশু, তরী ফাউন্ডেশন- স্কুল ফর গিফটেড চিলড্রেন এবং কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট সেন্টার।

বিজ্ঞাপন

সংস্থাগুলোর প্রয়োজন অনুযায়ী কেন্দ্র পরিচালনা খরচ, বাড়িভাড়া ও ট্রেনিং সেন্টার ব্যয়, বিশেষভাবে সক্ষম শিশুদের সহায়ক সরঞ্জাম, বিশেষায়িত শিক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম, শিক্ষা বাবদ খরচ এবং ক্যালেন্ডার ইত্যাদি খাতে সহায়তা দেয়া হচ্ছে।

বার্জার পেইন্টস ২০১১ সাল থেকে প্রতিবছর বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুদের জন্য চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করে আসছে। প্রতিবছর অনুষ্ঠিত হওয়া এই প্রতিযোগিতার এবারের আসরে দু’টি গ্রুপের ৬ জনকে পুরস্কার দেয়া হয়।

প্রতিযোগিতার ‘গ্রুপ এ’- তে ৬-১০ বছর এবং ‘গ্রুপ বি’- তে ১১-১৫ বছর বয়সী শিশুরা অংশ নেয়।

অনুষ্ঠানে বার্জার পেইন্টসসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রূপালী চৌধুরী বিজয়ীদের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন। প্রতিষ্ঠানটির সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার- সেলস‌ অ্যান্ড মার্কেটিং, মহসিন হাবীব চৌধুরী প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া বিজয়ীদের অনুদান ও সার্টিফিকেট দেন।

প্রতিযোগিতার ‘এ গ্রুপে’ প্রথম স্থান অধিকার করেন বাপ্পি ত্রিপুরা, দ্বিতীয় স্থান ও তৃতীয় স্থান অধিকার করেন যথাক্রমে মাশরুর আহমেদ আয়াজ ও ফাহিম ফয়সাল। ‘গ্রুপ বি’ এর বিজয়ীরা হলেন- রেহিন আল সাহিব (১ম), মুন্নি (২য়) ও শান্তা আক্তার (৩য়)।

প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী শিশুদের ১১৭টি চিত্রকর্ম প্রদর্শন করা হচ্ছে। অবিন্তা গ্যালারি অব ফাইন আর্টসে আগামী ১৩ মার্চ প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে রাত ৭টা পর্যন্ত প্রদর্শনীটি সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

বিজ্ঞাপন