চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিশাল বহর নিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে শিক্ষামন্ত্রী

কর্মকর্তা-সাংবাদিকদের বিশাল বহর নিয়েই এসএসসি পরীক্ষার প্রথমদিন কেন্দ্র
পরিদর্শন করলেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তবে তিনি বলেছেন, হলের
ভেতর শুধু সচিব এবং মন্ত্রী গিয়েছেন। হল পরিদর্শনে যাওয়া হয় কারণ এটি এক
ধরনের রেওয়াজ।

‘এতে শিক্ষার্থীরা খুশি হয় এবং সরকারও বুঝতে পারে হলের অবস্থা
কী,’ বলে মন্তব্য করেন শিক্ষামন্ত্রী।

তবে পরীক্ষার সময় অভিভাবক এবং পরীক্ষার পরে শিক্ষার্থীদের অনেকেই এমন পরিদর্শনে বিরক্তি প্রকাশ করেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে তারা বলেন, কেন্দ্রের অবস্থা বোঝার জন্য আরো অনেক ব্যবস্থা আছে। ‘বিশাল লটবহর নিয়ে কেনো তাদের কেন্দ্র পরিদর্শন করতে হবে?’ বলে প্রশ্ন রাখেন একজন।

সরেজমিন দেখা গেছে, শিক্ষামন্ত্রী, সচিব ও মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তারা রাজধানীর তেজগাঁও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের পরীক্ষা দেখতে যান।

বরাবরের মতো এবারো
পরিদর্শনের সময় মন্ত্রী আর কর্তা ব্যক্তিদের সঙ্গে ছিল গণমাধ্যমের বিশাল
বহর। তবে চ্যানেল আইয়ের ক্যামেরা বা সাংবাদিক মন্ত্রীর সঙ্গে কেন্দ্রের ভেতরে প্রবেশ করেননি।

সাড়ে ১৬ লাখ শিক্ষার্থীর পরীক্ষা
এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৬ লাখ ৫১ হাজার ৫শ’ ২৩। ২০১৫ থেকে এ বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় শিক্ষার্থী বেড়েছে ১ লাখ ৭২ হাজার ২শ’ ৫৭ জন। গত বছরের তুলনায় ২৭টি কেন্দ্র ও ৩১১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বেড়েছে।

পরীক্ষা শুরুর সময় সকাল ১০টা হলেও যানজটের ভোগান্তি এড়াতে সকাল ৮টার আগ থেকেই কেন্দ্রে আসতে শুরু করে শিক্ষার্থীরা।

একটু ভিন্ন পদ্ধতির পরীক্ষা
গত বছরের চেয়ে এবার একটু ভিন্ন পদ্ধতিতে পরীক্ষা হচ্ছে। এই পরিবর্তনকে ভালোই মনে করছে শিক্ষার্থীরা।

এবারের পরীক্ষায় বহু নির্বাচনী প্রশ্ন আগে দেয়া হয়েছে। এতে আপত্তি নেই শিক্ষার্থীদের। বরং এই পরিবর্তনের ফলে পরে সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর লিখতে সুবিধা হয়েছে বলে মনে করে তারা। 

কেন্দ্র পরিদর্শনের পর কেন্দ্রের বাইরে শিক্ষামন্ত্রী জানান, বর্তমান গ্রেডিং পদ্ধতিতে ধীরে ধীরে সংশোধনী আনা হবে, তবে পুরনো পদ্ধতি অবশ্যই ফিরে যাওয়া হবে না।

তিনি বলেন, আগে সারা দেশ শুধু একজন প্রথম হওয়া শিক্ষার্থীকে নিয়েই মাতোয়ারা হয়ে থাকতো। এখন হাজার হাজার ছেলেমেয়ে প্রথম হচ্ছে। এতে আরো অনেকে উৎসাহিত হচ্ছে।

‘ভবিষ্যতে এ ব্যবস্থা আরো উন্নত করার চেষ্টা করা হবে,’ বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

এসএসসি এবং সমমানের তত্ত্বীয় পরীক্ষা চলবে আগামী ৮ মার্চ পর্যন্ত। আর ৯ মার্চ থেকে ব্যবহারিক পরীক্ষা শুরু হয়ে শেষ হবে ১৪ মার্চ। এ বছর বাংলা ২য় পত্র এবং ইংরেজি ১ম ও ২য় পত্র ছাড়া সব বিষয়ে সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা নেওয়া হবে।