চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিরিশিরি কালচারাল একাডেমির পরিচালক হলেন সুজন হাজং

বিরিশিরি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমির পরিচালক হলেন সুজন হাজং। তাকে দুই বছরের জন্য নিয়োগ দিয়েছে সরকার।

মঙ্গলবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. অলিউর রহমান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

সুজন হাজং মাতৃভাষা বিষয়ক একুশে পদকপ্রাপ্ত সংগঠন “দ্য মাদার ল্যাঙ্গুয়েজ লাভার্স অব দ্য ওয়ার্ল্ড সোসাইটি, বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের জেনারেল সেক্রেটারি। সম্প্রতি তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য মনোনীত হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

সুজন হাজং তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, বৃহত্তর ময়মনসিংহে হাজং, গারো, কোচ, বানায়, হদি, ডালু ও বর্মণ নৃগোষ্ঠীর বসবাস। তাদের নিজস্ব বর্ণিল সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য আছে। পিছিয়ে পড়া এসব জনগোষ্ঠীর ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতি চর্চা ও বিকাশে কাজ করার সুযোগ পেয়ে আমি গর্বিত। এখানকার মানুষের জীবনবোধ, জীবনাচার ও জীবন সংগ্রাম আমি খুব কাছ থেকে দেখেছি। তাই সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে এসব প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক উন্নয়নে কাজ করতে আমি প্রতিশ্রুতিশীল। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর আর্থ সামাজিক ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নে বর্তমান সরকার নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে। আমাকে বিরিশিরি কালচারাল একাডেমির পরিচালক নিয়োগ প্রদানের জন্য প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

সুজন হাজং বলেন, একসময় ভালবাসা ও দ্রোহের কবি রফিক আজাদ বিরিশিরি কালচারাল একাডেমির পরিচালক ছিলেন। প্রিয় কবি রফিক আজাদের অনেক স্মৃতি জড়িয়ে আছে এই বিরিশিরিতে। এখানকার সহজ সরল নৃগোষ্ঠীর জীবনধারার সাথে তিনি মিশে গিয়েছেন। তাদের নিয়ে লিখেছেন অগনিত কবিতা। আজ তিনি নেই। আমি হাজার কাজের ভিড়েও এখানে তাঁর রেখে যাওয়া স্মৃতিগুলো খুঁজবো। এটাই হবে একজন অগ্রজ কবির প্রতি তার অনুজ কবির শ্রদ্ধা।

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে সার্কভুক্ত ছয়টি দেশের আটজন শিল্পী সুজন হাজংয়ের লেখা গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। পাশাপাশি নন্দিত সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দী, নচিকেতা, শুভমিতা, ফাহমিদা নবী, সামিনা চৌধুরী, প্রিয়াংকা গোপ, অবন্তি সিঁথি, লুইপা, কিশোর, সাব্বির, মুহিন, লিজা, পুলক, রন্টি দাস, সুস্মিতা সাহাসহ নতুন প্রজন্মের অনেকেই তাঁর লেখা গানে কণ্ঠ দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন