চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিপুল জয়ে ‘গদি বাঁচালেন’ মমতা

ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই জয়ে মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে থাকা নিয়ে তার সব সংশয় দূর হয়ে গেল। 

আনন্দবাজার-সহ পশ্চিমবঙ্গের একাধিক গণমাধ্যম জানিয়েছে, বিজেপির যুবনেত্রী ও আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়ালকে তিনি হারিয়েছেন ৫৮ হাজার ৩৮৯ ভোটের রেকর্ড ব্যবধানে।

তবে বিজেপি প্রার্থীর দাবি, ‘সব ওয়ার্ডে রিগিং হয়েছে।’ রিগিং করে জেতার জন্য তৃণমূল কংগ্রেসকে শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন তিনি।

মোট ২১ রাউন্ড ভোট গণনা শেষে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পান ৮৪ হাজার ৭০৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল পেয়েছেন ২৬ হাজার ৩২০ ভোট। আর বামজোটের প্রার্থী শ্রীজীব বিশ্বাস পেয়েছেন মাত্র ৪ হাজার ২০১ ভোট।

বিজ্ঞাপন

একই দিন গণনা চলা আরও দুটি বিধানসভা আসন মুর্শিদাবাদ জেলার শমসেরগঞ্জ এবং জঙ্গিপুরেও এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল।

বিগত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিনেতা শুভেন্দু অধিকারীর কাছে হেরেও মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে বসেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিয়মানুযায়ী সেই চেয়ার বাঁচাতে তাকে ৬ মাসের মধ্যে আবারও কোনো একটা বিধানসভা আসন থেকে জয়ী হয়ে আসতে হতো।

দক্ষিণ কলকাতার ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্রটি মূলত তার ঘাঁটি হিসেবেই পরিচিত। তবে বিগত বিধানসভা নির্বাচনে ‘জেদের বশে’ শুভেন্দুর সঙ্গে লড়তে গিয়ে হেরে যান নন্দীগ্রামে। এই ভবানীপুর আসনে জয়লাভ করেন বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়।

মমতার কথা বিবেচনা করে পরে পদত্যাগ করেন তিনি। সেই শূন্য আসনেই ভোটযুদ্ধে জয়লাভ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর ভবানীপুরসহ এই তিনটি আসনে ভোট গ্রহণ করা হয়।

বিজ্ঞাপন