চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিদ্রোহ নয় সমঝোতাই করছে কেকেআর

লাল ঝাণ্ডা নামিয়ে সাদা পতাকাই ওড়াচ্ছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। এর আগে
আইপিএল বয়কটের খবর এলেও এখন শোনা যাচ্ছে, সমঝোতা দিয়েই সমাধান টানতে চায়
কেকেআর। যত দ্রুত সম্ভব ভারতে ডেকে এনে সুনীল নারাইনকে অ্যাকশনের পরীক্ষা
করিয়ে নিতে চায়। নারাইনকে ভারতে ওড়ে আসার জন্য ‘অ্যাসাপ’ বার্তা পাঠানোও
হয়েছে। অ্যাকশনের বায়োমেকানিক পরীক্ষাটা সেখানেই হবে, চেন্নাইয়ের শ্রী
রামচন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে। এটাই আইসিসির নতুন তিন বোলিং অ্যাকশন
পরীক্ষাকেন্দ্রের একটি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, নারাইনের অ্যাকশন পরীক্ষা এড়ানোর জন্য
কেকেআর প্রথমে সর্বশক্তিই নিয়োগ করেছিল। তাদের পক্ষে যুক্তিও আছে। নারাইন
তো অ্যাকশন শোধরানোর পর একবার পরীক্ষা দিয়ে সবুজ সংকেত পেয়েছেনই। আইসিসিও
ছাড়পত্র দিয়েছে। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) লাফবরোর সেই
পরীক্ষাগারের ফল গ্রহণ করতে নারাজ। এই পরীক্ষার উদ্যোগ নারাইন নিজেই
নিয়েছেন, আইসিসি নয়। আর নারাইনের অ্যাকশন যেহেতু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট
নয়, চ্যাম্পিয়নস লিগে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিল, আইসিসিও পরীক্ষার উদ্যোগ
নেয়নি।
চ্যাম্পিয়নস লিগের আয়োজক আইপি​এলের পরিচালক কমিটিই। মতান্তরে বিসিসিআই।
ফলে বিসিসিআইয়ের টুর্নামেন্টে এখনো নিষিদ্ধই থাকছেন নারাইন। ছাড়পত্র পেতে
চেন্নাইয়ে পরীক্ষা দিতেই হবে। কিন্তু কেকেআরের অভিযোগ, কলকাতাকে দুবার
চ্যাম্পিয়ন বানানোর মূল কারিগরকে কোণঠাসা করতে এসব করা হচ্ছে। এ কারণেই
প্রথমে ছিল বিদ্রোহের সুর।
কিন্তু সময়ও তো থেমে নেই। ৮ এপ্রিল উদ্বোধনী দিনেই কেকেআরের ম্যাচ।
খেলোয়াড় তালিকা জমা দিতে হবে তারও আগে। দ্রুত তাই পরীক্ষাটা করিয়ে নিতে
চায় কেকেআর। কিন্তু সমস্যা হলো, যদি সেই পরীক্ষায় নারাইন পাস না করেন?
কেকেআরের সূত্রগুলো বলছে, আপাতত চূড়ান্ত দলের তালিকায় নারাইনকে রাখা হবে।
পাস করলে তো ঝামেলা মিটেই গেল। পাস না করলে দুটো বিকল্প ভাবা হচ্ছে।
নারাইনকে দল থেকে বাদ দিয়ে অন্য কাউকে আনার অনুমতি চাইবে কেকেআর। কিংবা
তাঁকে দলে রেখেই অ্যাকশন শোধরানোর জন্য আরও সময় দেওয়া হবে। যেন ফের
পরীক্ষা দিয়ে আইপিএলে খেলার ছাড়পত্র পেতে পারেন।
২০১২ ও ২০১৪-যে দুবার কলকাতা চ্যাম্পিয়ন হয়, ওই দুই আসরে নারাইন যথাক্রমে
২৪ ও ২২ উইকেট নিয়েছিলেন। ফলে তাঁকে দলে রাখতে কেকেআর যে মরিয়া হবে, এ
তো জানা কথাই। এমনও গুঞ্জন আছে, বিশ্বকাপ খেলতে গিয়ে অ্যাকশন প্রশ্নবিদ্ধ
হলে আইপিএল খেলা ভেস্তে যেতে পারে ভেবে নারাইন স্বেচ্ছায় এত বড়
টুর্নামেন্ট খেলার স্বপ্নও নাকি বিসর্জন দিয়েছিলেন!
নারাইনকে না পেলেও ‘নারাইন নম্বর টু’কে দিয়ে একটা টোটকা খেলতে পারে
কেকেআর। এবারের নিলামে অনেককেই চমকে দিয়ে বেঙ্গালুরুর উঠতি স্পিনার কে সি
কারিয়াপ্পাকে ২ কোটি ৪০ লাখ রুপিতে কিনেছিল কলকাতা। অনেকেই তাঁর মধ্যে
নারাইনের ছায়া দেখতে পান।

Advertisement