চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিজেপির বিরুদ্ধে একজোট হতে বিরোধী নেতাদের চিঠি দিলেন মমতা

বিজেপির বিরুদ্ধে একজোট হওয়ার জন্য বিরোধী নেতাদের চিঠি দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

চিঠিতে গণতন্ত্র ও যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর ওপর বিজেপি এবং তাদের কেন্দ্রীয় সরকারের একের পর এক আক্রমণের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

বুধবার ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, বিরোধীদলীয় নেতা সোনিয়া গান্ধী থেকে শুরু করে শরদ পাওয়ার, এম কে স্ট্যালিন, ফারুক আবদুল্লাহ, উদ্ধব ঠাকরে, জগন মোহন রেড্ডি, নবীন পাটনায়েক, অখিলেশ যাদব, তেজস্বী যাদব, অরবিন্দ কেজরিওয়াল, দীপঙ্কর ভট্টাচার্যকে চিঠি দিয়েছেন মমতা।

চিঠিতে দিল্লি বিল নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন মমতা। এছাড়াও গণতন্ত্রকে বাঁচাতে বিজেপির বিরুদ্ধে একজোট হওয়ার বার্তা দিয়েছেন।

আজ হুগলির গোঘাট বিধানসভার কামারপুকুরে নির্বাচনী সভায় মমতা বলেন: নির্বাচন কমিশন যেন বিজেপির মুখপাত্র হয়ে গেছে। বহিরাগত গুণ্ডারা আসতে পারছে কীভাবে? আগে নিয়ম ছিল, বুথ এজেন্ট স্থানীয় বুথের হতে হবে। কিন্তু বিজেপি দাবি করার পর সেই নিয়ম পাল্টে দেওয়া হয়। এখন অন্য বুথের লোকও আর এক বুথে বুথ এজেন্ট হতে পারবেন। এভাবে বিজেপির কথায় কাজ করছে কমিশন।

মমতা বলেন: বিজেপি যা বলবে শুনতে হবে? নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করুন নির্বাচন কমিশন। মনে হচ্ছে রাষ্ট্রপতি শাসনে ভোট হচ্ছে।

এর আগে গত ২২ মার্চ মমতা হুইলচেয়ারে বসে হাতে মাইক নিয়ে বাঁকুড়ার কোতলপুর ও ইন্দাস এবং পুরুলিয়ার বড়জোড়ায় তিনটি জনসভা করেন।

সেসব জনসভার বক্তৃতায় মমতা বলেছেন: বিজেপি একটি বিষধর সাপ। যেখানে যাবে সেখানে ছোবল মারবে। সাবধান। তাদের এই বাংলায় আশ্রয় দেবেন না। তাড়িয়ে দিন। এই বাংলা চায় এই বাংলার মেয়েকে, কোনো বহিরাগতকে নয়।

আগামীকাল ১ এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গে  দ্বিতীয় দফার নির্বাচন হবে রাজ্যের ৪টি জেলার ৩০টি আসনে।

বিজ্ঞাপন