চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিকেএসপিতে প্রথমদিনে পড়ল ২১ উইকেট

বরিশালকে ৮২ রানে গুটিয়ে দিয়ে ১৫১ রানে অলআউট হয়ে গেছে রাজশাহী বিভাগ। বিকেএসপির স্পিন স্বর্গে দাপট দেখিয়েছেন স্পিনাররাই। জাতীয় ক্রিকেট লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচটিতে প্রথমদিনে উইকেট পড়েছে ২১টি। দুই দলই হয়েছে একবার করে অলআউট।

চার দিনের ম্যাচটিতে ফল কত দ্রুত আসে সেটিই দেখার। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে প্রথমদিন শেষে ১ উইকেটে ২৩ রান তুলেছে বরিশাল।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

শুরুতে ব্যাট করা বরিশাল একশর আগেই গুটি যায় তাইজুল ইসলাম ও সানজামুল ইসলামের ঘূর্ণিতে। দুই বাঁহাতি স্পিনার নেন ৪টি করে উইকেট। দুটি উইকেট নিয়েছেন পেসার মোহর শেখ।

মঈন খান করে সর্বোচ্চ ১৮ রান। বরিশালের ইনিংস দীর্ঘ হয় মাত্র ২৯.৩ ওভার।

এক সেশনে বরিশালকে অলআউট করা রাজশাহী দুই সেশন পুরো ব্যাট করতে পারেনি। দিনের খেলা খানিকটা বাকি রেখে দেড়শ পেরিয়ে গুটিয়ে যায়।

জুনায়েদ সিদ্দিক ৪৩ ও তানজিদ হাসান তামিম করেন ৩৬ রান।

বিজ্ঞাপন

৮৬ রানে ৮ উইকেট হারিয়ে বসা রাজশাহী একশর আগেই গুটিয়ে যেতে পারত। শেষে তাইজুল ইসলাম ব্যাট হাতে দাঁড়িয়ে যাওয়ায় সেটি হয়নি। এ বাঁহাতির ৩৭ রানের লড়াই দলকে এনে দেয় লিড।

৬ উইকেট নিয়েছেন বরিশালের অফস্পিনার সোহাগ গাজী। ২৩ ওভার বোলিং করে দেন ৬৫ রান। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ইনিংসে গাজীর ৫ উইকেট ২২তম বার।

৬৯ রানে পিছিয়ে থেকে পড়ন্ত বিকেলে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামা বরিশাল ২৩ রান তুলেছে।

পিনাকের সেঞ্চুরিতে শক্ত অবস্থানে চট্টগ্রাম
চট্টগ্রামের অধিনায়ক মুমিনুল হক আবারও ব্যর্থ। দ্বিতীয় রাউন্ডের প্রথম ইনিংসে আউট ১১ রান করে। প্রথম রাউন্ডের দুটি ইনিংস ছিল ৬ ও ১৩ রানের। অভিজ্ঞ এ ব্যাটসম্যান ব্যর্থ হলেও হেসেছে তরুণ ওপেনার পিনাক ঘোষের ব্যাট।

এ বাঁহাতির অপরাজিত ১৩৭ রানের ইনিংসে ভর করে কক্সবাজারে ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে জাতীয় লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডের প্রথমদিন শেষে চট্টগ্রাম বিভাগ ৪ উইকেট হারিয়ে ২৮১ রান তুলেছে।

শাহাদাত হোসেন দীপু অপরাজিত আছেন ৩২ রানে। আরাফাত সানি দুটি, শহিদুল ইসলাম ও আবু হায়দার রনি নিয়েছেন একটি করে উইকেট।