চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাস্তব জীবনে অভিনয়টা আমার পছন্দ নয়: সাইমন

‘পর্দায় আমি ভালো অভিনেতা হতে চাই। বাস্তব জীবনে অভিনয়টা আমার পছন্দ নয়। আমি জানি, জীবন একটাই। সেই জীবনে সবার ভালোবাস নিয়ে চলাটাই গুরুত্বপূর্ণ। তবে সবার কাছে দোয়া চাই, যেন পর্দায় আমি ভালো অভিনয় করতে পারি।’

-বলছিলেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা সাইমন সাদিক। শনিবার দুপুরে চ্যানেল আইয়ের নিয়মিত আয়োজন ‘তারকা কথন’ এ অতিথি হয়ে আসেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

নায়ক নাকি অভিনেতা, কোনটায় স্বস্তি সাইমনের? এমন প্রশ্নে সরল মন্তব্য এই চিত্রনায়কের। জানালেন, অভিনেতা হওয়ারই বাসনা লালন করেন মনের মধ্যে।

বিজ্ঞাপন

নিজের সম্পর্কে এই অভিনেতা বলেন, আমার মধ্যে হিরোইজম ব্যাপারটা একদম চাই না। হিরো ঠিকাছে, কিন্তু আমি খুব সিম্পলভাবে থাকতে চাই। আমি চাই সবাই আমাকে ভালোবাসুক, বিশ্বাস করুক। আমি যা বলবো, সেটাই যেন করার চেষ্টা করি। এই যে সাধারণভাবে চলাটা, আমি খুব এনজয় করি।

নিজের বয়স নিয়েও লুকোচুরি করতে রাজি নন সাইমন। জানালেন তার জন্ম বছর ৩০ আগস্ট ১৯৮৫। বললেন, ‘বয়স কোনো ফেক্ট না। নিজেকে ধরে রাখা হলো গুরুত্বপূর্ণ।’

ফিল্ম পলিটিক্স নিয়েও কথা বলেন এই নায়ক। জানালেন, ফিল্ম পলিটিক্স বলে কোনো শব্দ নেই। ফিল্ম মানে বড় পর্দা। চলমান যে চিত্র, সেটাই চলচ্চিত্র। সেখানে পলিটিক্সের জায়গা নেই। এখানে কে কতোটুকু কাজ করলো, দর্শক সেটাই দেখবে। আর যে পলিটিক্স এর কথা উঠছে, সেটা সব জায়গাতেই আছে। নাটক, চলচ্চিত্র এমনকি মানুষের পরিবারেও আছে। সেটা এতো বড় কিছু না। কারণ পলিটিক্স কিন্তু খুব পবিত্র একটি শব্দ। এখন কে কীভাবে ব্যবহার করবে, সেভাবেই আমরা রিটার্ন পাবো।

২০১০ সালে প্রথম শুটিং শুরু করেন সাইমন। ২০১২ সালে প্রথম সিনেমা মুক্তি। ছবির নাম ‘জী হুজুর’। এই ছবির মধ্য দিয়েই চলচ্চিত্রে পা রাখেন তিনি। যদিও ছবিটি দর্শক মহলে খুব একটা সাড়া ফেলেনি, তবে তার পরের ছবি ‘পোড়ামন’ দারুণভাবে দর্শক সমাদৃত হয়। ব্যবসায়িকভাবেও সফল হয় ছবিটি।

এরপর শুধু সামনে এগিয়ে চলা। অভিনয় জীবনের আট বছরের মধ্যেই ২০১৮ সালে বছরের শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে অর্জন করেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। প্রতিক্রিয়ায় এই তারকা বলেন, এতো কম সময়ে দর্শকের যে ভালোবাসা পেয়েছি, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এই ভালোবাসাই সম্বল মনে করি। আগামিতে মানুষের ভালোবাসা নিয়েই পথ চলতে চাই।

করোনার কারণে মুক্তির প্রতীক্ষায় আছে ‘আনন্দ অশ্রু’ নামের একটি ছবিসহ বেশ কয়েকটি ছবি। শুটিংও ঝুলে আছে একাধিক ছবির।