চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বার্সার সাবেক প্রেসিডেন্ট বললেন ‘দোষ আমার না’

২০১৭ সালে বার্সেলোনার সঙ্গে হওয়া লিওনেল মেসির চুক্তি ফাঁস হয়ে গেছে স্প্যানিশ পত্রিকা এল মুন্ডোতে। তা থেকে জানা গেছে বছরে ১৩৮ মিলিয়নের আকাশচুম্বী পারিশ্রমিক পান আর্জেন্টাইন মহাতারকা। এভাবে চুক্তি ফাঁসকে ‘অবৈধ’ দাবি করে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছে বার্সা। কিছু গণমাধ্যম বলছে, সাবেক প্রেসিডেন্ট জোসেপ মারিয়া বার্তেমেউ বা তার সাবেক পরিচালনা পর্ষদের কারও কাজ এই তথ্য পাচার।

গণমাধ্যমের এসব বক্তব্যকে ‘মিথ্যা’ উল্লেখ করে যারা চুক্তি ফাঁস করেছে তাদের বিচারের সামনে আনার দাবি জানিয়েছেন বার্তেমেউ। এস্পোর্ট থ্রি’র সঙ্গে কথোপকথনে নিজেকে নির্দোষও বলছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

‘এটা খুবই স্পর্শকাতর একটা বিষয়, একটা পেশাদার চুক্তি ফাঁস হয়ে যাওয়া অবৈধ, অন্যায়। টেলিভিশনে কথা বলা, গালমন্দ করা সাধারণ একটা বিষয়। কিন্তু যা হয়েছে সেটা মোটেও হাস্যকর নয় এবং এর বিচার আদালতে হওয়া উচিৎ।’

তার হাত ধরেই ২০১৭ সালে বিশ্বের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া ফুটবলার বনে যান মেসি। যে চুক্তি হয়েছে সেটা আর্জেন্টাইন মহাতারকার প্রাপ্য বলেই মনে করেন বার্তেমেউ, ‘লিওর এটা প্রাপ্য, পেশাদার-বাণিজ্যিকভাবে সবক্ষেত্রেই। মহামারী না হলে এই বেতন পরিশোধ করা বার্সার জন্য কোনো ব্যাপারই ছিল না।’

একই কথা বলছেন লা লিগা প্রেসিডেন্ট হাভিয়ের তেবাসও। বার্সার আর্থিক দুরবস্থার জন্য মেসির কোনো হাত নেই বলে মনে করেন তিনি, ‘বার্সেলোনার এই দুরবস্থা মেসির নয়, কোভিড পরিস্থিতির কারণে তৈরি। মহামারী না হলে বিশ্বের সেরা ফুটবলারের মাধ্যমে যে আয়টা হতো, তা চিন্তারও বাইরে। যেসব গণমাধ্যম এসব দাবি করছে তারা সত্যিটা বলছে না।’

বিজ্ঞাপন