চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাদ পড়লেই বিশাল আর্থিক ক্ষতি বার্সার

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে বাঁচা-মরার ম্যাচে সামনে বায়ার্ন

চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। চলতি মৌসুম এক দুঃস্বপ্নের নাম হয়ে উঠেছে বার্সেলোনার জন্য। পথহারা সময়ে আবার পড়তে হচ্ছে বায়ার্ন মিউনিখের সামনে। যে প্রতিপক্ষের সামনে একেবারেই পেরে উঠছে না কাতালানরা।

গত মৌসুমে কোয়ার্টার ফাইনালে জার্মান জায়ান্টদের বিপক্ষে ৮-২ গোলে বিধ্বস্ত হওয়ার পর অনেক জল গড়িয়েছে। সাবেক কোচ রোনাল্ড কোম্যানের ইচ্ছায় লুইস সুয়ারেজকে ছাড়তে হয়েছে ন্যু ক্যাম্প।

ব্যুরোফ্যাক্স পাঠিয়ে শৈশবের ক্লাব ছাড়ার কথা আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়ে দিয়েছিলেন লিওনেল মেসি। সে যাত্রায় নাটকীয়তার পর থেকে গেলেও আর্জেন্টাইন মহাতারকার ঠিকানা এখন পিএসজি। বাজে পারফরম্যান্সের কারণে ছাঁটাই হয়েছেন কোম্যান। কোচের চেয়ারে এসেছেন জাভি হার্নান্দেজ।

পথহারা সময়েই আবার বায়ার্ন নামক অগ্নিপরীক্ষার সামনে বার্সা। অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনায় বুধবার রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ই-গ্রুপে ফিরতি ম্যাচে বাভারিয়ানদের মুখোমুখি হবে কাতালানরা। প্রথম দেখায় ন্যু ক্যাম্পে ৩-০ গোলে হেরেছিল বার্সা।

সেই হারের ক্ষত এতটাই গভীরে যেয়ে ঠেকেছে যে, ফিরতি লেগে বায়ার্নকে হারাতে না পারলে এ মৌসুমে গ্রুপপর্বেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগ অভিযান শেষ হয়ে যেতে পারে বার্সার। সঙ্গে পড়তে হবে বিস্তর আর্থিক ক্ষতির মুখে।

বিজ্ঞাপন

বায়ার্ন বাধা পেরোতে না পারলে শুধু গ্রুপপর্বে বাদের মর্যাদাই ক্ষুণ্ণ নয়; একইসঙ্গে চরম আর্থিক সংকটের মুখেও পড়বে বার্সেলোনা। যেটি ক্লাবের ভবিষ্যতকে অনিশ্চিত পথে নিয়ে যেতে পারে।

প্রাক-মৌসুম বাজেটে বার্সা অন্তত কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যায়ে পৌঁছানোর মতো রূপরেখা করেছিল। কিন্তু গ্রুপপর্বে বিদায় নিলে তাদের ২০.২ মিলিয়ন ইউরো আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হবে। ক্লাব সভাপতির দায়িত্ব নেয়ার পর হুয়ান লাপোর্তার জন্য যা হবে বিশাল এক ধাক্কা। স্প্যানিশ জায়ান্টরা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টারে উঠতে ব্যর্থ হলে বাজেট সংকুলানে জানুয়ারির দলবদল মার্কেটে খেলোয়াড় কেনার সম্ভাবনা হুমকির মুখে পড়ে যাবে।

বার্সা যদি ইউরোপা লিগে নেমে যায়, আর সেই আসরের শিরোপা জিততে পারে, তাহলে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ ২০.২ মিলিয়ন ইউরোর চেয়ে অনেকটা কম হবে। ইউরোপা লিগ জিতলে তারা ১৪.৯ মিলিয়ন ইউরো পাবে। সেক্ষেত্রে ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াবে ৫.৩ মিলিয়ন ইউরো।

কোয়ার্টারে যাওয়ার আগে গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে শেষ ষোলো নিশ্চিত করতে হলে বার্সেলোনাকে জিততেই হবে বায়ার্ন ম্যাচে। ড্র বা হেরে বসলেও সুযোগ খানিকটা থাকবে, সেই ভিন্ন সমীকরণের জন্য গ্রুপের অন্য খেলার অনেক যদি-কিন্তুর উপর নির্ভরশীল থাকতে হবে।

এ মৌসুমে ৫ জয়ে ১৫ পয়েন্ট তোলা বায়ার্ন নকআউট পর্ব তো বটেই, গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়াও নিশ্চিত করেছে। সমান ম্যাচে দুই জয়, দুই হার ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট পাওয়া বার্সেলোনা আছে খাদের কিনারায়। রাতে বেনফিকা ও ডায়নামো কিয়েভ ম্যাচের ফলাফলের দিকেও নজর রাখতে হচ্ছে বার্সাকে। ৫ পয়েন্টে বেনফিকার, তারা যদি ১ পয়েন্টের কিয়েভকে হারিয়ে দেয়; তাহলে বার্সার বিদায়ঘণ্টা বেজে যাবে।

বার্সা ড্র করলে এবং বেনফিকা জিতলে দুই দলের পয়েন্ট হবে সমান ৮। সেক্ষেত্রে গোলপার্থক্যের হিসাবে একটি দল পরের রাউন্ডে যাবে। বার্সেলোনা হারলেও নকআউট পর্বে যাওয়ার সুযোগ থাকবে, যদি কিয়েভের কাছে বেনফিকা হেরে বসে।

বিজ্ঞাপন