চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাজেটে প্রায় ১২ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা চায় পোশাক খাত

আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক খাতের জন্য রপ্তানিতে ৫ শতাংশ নগদ সহায়তা দেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে। টাকার অংকে যার পরিমাণ দাঁড়ায় ১১ হাজার ৭২৪ কোটি টাকা।

রপ্তানিতে পোশাক খাতের আপদকালীন পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য এ অর্থ সহায়তা চেয়েছে পোশাক খাত সংশ্লিষ্ট তিন সংগঠন।

বিজ্ঞাপন

সোমবার রাজধানীর গুলশানে হোটেল আমারিতে তিনটি সংগঠন আয়োজিত প্রাক-বাজেট আলোচনা শীর্ষক সংবাদ সম্মেলন এ দাবি জানানো হয়। বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও বিটিএমএ যৌথভাবে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, বিজিএমইএ সভাপতি রুবানা হক, বিটিএমএ সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন এবং বিকেএমইএ ভাইস প্রেসিডেন্ট মুনসুর আহমেদ প্রসুখ।

রুবানা হক বলেন, তৈরি পোশাক খাত এখন সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় রয়েছে। গত এক মাসে ২২টি কারখানা বন্ধ হয়েছে। যেখানে প্রায় সাড়ে ১০ হাজার শ্রমিক চাকরি হারিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা ক্লান্তিলগ্নে এসেছি। এখন সহায়তা না দিলে সমস্যায় পড়বো। তাই আগামী ৫ বছর রপ্তানিতে ৫ শতাংশ হারে নগদ সহায়তা দরকার। এই সহযোগিতা পেলে পোশাক খাত ঘুরে দাঁড়াতে পারবে। এটি দিলে ১৪ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে হবে সরকারকে। তবে আমরা এখন যে সহায়তা পাই এটি বাদ দিলে ভর্তুকি দাঁড়াবে ১১ হাজার ৭২৪ কোটি টাকা।

ঋণ পুনঃতফসিলিকরণ মেয়াদ দ্বিগুণ করার দাবি জানিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি রুবানা হক বলেন, যেসব কারখানা ইচ্ছাকৃতভাবে খেলাপি নয়, তাদের উৎপাদন কাজে ফিরে যাওয়া এবং ব্যবসা সচল রাখার জন্য সুযোগ হিসেবে পুনঃতফসিলিকরণের মেয়াদ দ্বিগুণ করা উচিৎ। এতে কর্মসংস্থান বাড়বে, সর্বোপরি অর্থনীতি সুফল ভোগ করবে। এ জন্য বাজেটে বিশেষ বরাদ্দের প্রত্যাশা করছি।