চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাংলাদেশ যা হারালো, তা পূরণ হবার নয়

সুবীর নন্দীর মৃত্যুতে তারকাদের শোক: আমাদের মাথার ওপর থেকে ছাদগুলো ক্রমশ সরে যাচ্ছে

উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর গিয়েছিলেন দেশের বরেণ্য সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দী। ফিরছেন বুধবার সকালে, তবে প্রাণহীন! মঙ্গলবার ভোর চারটা ২৬ মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন এই কিংবদন্তি শিল্পী।

সুস্থ হয়ে ফিরে এসে আবার গান নিয়ে মেতে উঠা স্বপ্নই থেকে গেলো তাঁর। তাকে হারানোর শোক অনুভব করছে পুরো দেশের মানুষ। তার ভক্ত অনুরাগীদের আহাজারিতে সিক্ত সোশাল মিডিয়া। তবে আপনজন হারানোর শোকে মূহ্যমান সংগীত জগতসহ গোটা শোবিজ অঙ্গন।

বিজ্ঞাপন

চলচ্চিত্রের গান দিয়েই বাজিমাত করেছেন সুবীর নন্দী। তাই সংগীত জগতের পাশাপাশি চলচ্চিত্রের মানুষেরাও তাকে হারিয়ে বেদনাহত। আর বেদনার সেই সুর আঁছড়ে পড়ছে সোশাল মিডিয়ায়।

সুবীর নন্দীর মৃত্যুর খবরে ফেসবুকে শোক জানিয়ে টুকরো টুকরো বিষয় নিয়ে স্মৃতিচারণও করছেন কেউ কেউ। সমব্যথি সেইসব তারকাদের মধ্য থেকে কিছু তুলে ধরা হলো এখানে:

সুবীর নন্দীর মৃত্যুতে শোকাহত সুগীতশিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ। তিনি লিখেন, বাংলাদেশ যা হারালো, তা পূরণ হবার নয়। এই মহান শিল্পীর প্রতি রইল গভীর শ্রদ্ধা। স্রষ্টা বরেণ্য এই শিল্পীর আত্মাকে শান্তিতে রাখুন।

দেশের আরেক বরেণ্য শিল্পী তপন চৌধুরী লিখলেন, সুবীর দা চলে গেলো!

দেশের তারকা অভিনেতা শাকিব খান তার অফিশিয়াল ফেসবুকে লিখেন: দেশ বরেণ্য সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দী আর নেই। তার মৃত্যুতে সংগীতাঙ্গন হারালো আরেক নক্ষত্র। কিংবদন্তী এই গানের মানুষের আত্মার শান্তি কামনা করছি।

ছোট ও বড় পর্দার তারকা অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। সুবীর নন্দীর মৃত্যুতে তারসঙ্গে কাটানো কিছু সুন্দর মুহূর্তের ছবি পোস্ট করে লিখেন, অনেক বড় একটা ক্ষতি হয়ে গেল আমাদের। কী লিখবো সুবীরদা কে নিয়ে? অনেক আবেগ তাড়িত হচ্ছি বার বার। চোখটা ভিজে যাচ্ছে। এই তো কয়েকদিন আগে, বাংলাভিশনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে দাদার সাথে দেখা হলো। দাদার সাথে ছোট ছোট স্মৃতি। দেখা হলেই ‘কেমন আছো চঞ্চল?’ আর কখনো দেখা হবে না সুবীর দার সাথে। হবে না কোন কথা। আমাদের মাথার ওপর থেকে ছাদগুলো ক্রমশ সরে যাচ্ছে এভাবেই। ক্ষণজন্মা এই শিল্পী সুবীর নন্দীর অভাব পূরণ হবার নয়। আপনি বেঁচে থাকবেন আমাদের গানে,মনে,প্রাণে। শত সহস্র বছর….ভালো থাকবেন দাদা…..বিনম্র শ্রদ্ধা।

কিংবদন্তি শিল্পীর মৃত্যুতে শোকার্ত চিত্রনায়িকা পূর্ণিমাও। তিনি লিখেন, কিংবদন্তি সুবীর নন্দী স্যার, আপনি শান্তিতে থাকুন।

ফাহমিদা নবী বলেন, সংগীত পাগল মানুষটি গান গান করেই কাঁদিয়ে চির বিদায় নিলেন! শুধু গান গাইলেই শিল্পী হয়ে মানুষের মনে জায়গা করা যায়না। বিনয়ী, ধৈর্যশীল, রুচিশীল এবং নিরঅহংকার হতে হয়, সুবীর কাকা তাই ছিলেন। একজন প্রকৃত শিল্পী। তাইতো আজ তার ভক্তরা কাঁদছেন! কাকা। আপনার গান বাঁচিয়ে রাখবে আপনাকে।

নাট্যকার মাসুম রেজার ভাষ্য: সেলিম আল দীন-এর একটা বয়সভীতি ছিলো। তাঁর পঞ্চাশতম জন্মদিন কাউকে জানতে দেননি। একান্নতে এসে জানা গেলো তিনি পঞ্চাশ পেরিয়েছেন একবছর আগেই। যাইহোক তাঁর একান্নতম জন্মদিনেই পালিত হলো পঞ্চাশতম জন্মদিন। বাচ্চু ভাইয়ের আয়োজনে ঘরোয়া পরিবেশে.. শিমুল আপা, আসাদভাই, পারুলভাবি, শেলীসহ সেলিম ভাইও উপস্থিত.. অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ ছিলো সুবীর দা’র গান। তাঁর পাশে বসে একের পর এক শুনলাম তার বিখ্যাত গানগুলো। হাজার মনের কাছে, আমার এ দুটি চোখ, বন্ধু হতে চেয়ে তোমার, দিন যায় কথা থাক, আমি বৃষ্টির কাছ থেকে কাঁদতে শিখেছি, আমায় আর কাঁদাবার ভয় দেখিয়ে কোনো লাভ নেই! মুগ্ধ হয়ে শুনেছিলাম গানগুলো..। সেলিমভাই চলে গেছেন এগারো বছর আগে। আজ চলে গেলেন সুবীর দা। সুবীর দা’র গানের প্রতি মুগ্ধতা আমার কোনোদিনই কাটবে না। আপনাকে কাঁদাবার ভয় দেখিয়ে আর কোনো লাভ নেই। কিন্তু আমাদের মনটাতো কাঁদছে সুবীর দা..

অভিনেত্রী শাহনাজ খুশী লিখেন: ‘কতো যে তোমাকে বেসেছি ভাল,সে কথা তুমি যদি জানতে,এই হৃদয় ছিঁড়ে যদি দেখানো যেতো ,আমি যে তোমার তুমি মানতে…’। বাংলাদেশে সুরের ঐশ্বর্য্য নিয়ে আপনি ঘুমিয়ে গেলেন! কীর্তিমানের মৃত্যু নাই। আপনি সারাজীবন বেঁচে থাকবেন আপনারই স্বর্গীয় সুরের ধারায়! বিনম্র শ্রদ্ধা।

অভিনেতা শতাব্দী ওয়াদুদ শোক প্রকাশ করে বলেন, ‘আমি বৃষ্টির কাছ থেকে কাদতে শিখেছি/ আমায় আর কান্নার ভয় দেখিয়ে কোন লাভ নেই’। প্রিয় সুবীর নন্দী আপনি আপনার জীবদ্দশায় আপনার সুমিষ্ট কণ্ঠ এবং অসাধারণ গায়কী দিয়ে আমাদের হাসি-কান্নার অংশীদার হয়েছেন! আপনার গানের জন্য আপনি বাঙালির বুকে টিকে থাকবেন অনন্তকাল! ঈশ্বর আপনার আত্মার প্রতি সদয় হোন!

বিখ্যাত সুরকার শহীদ আলতাফ মাহমুদ কন্যা শাওন মাহমুদ লিখেছেন, কেউ কারো স্থানে প্রতিস্থাপন হয় না। কারো কারো কাছাকাছি হয়তোবা কখনও পৌঁছানো যায়। চেহারায়, চলনে বা কন্ঠে। আগামীতে হয়তো শুনতে হবে, আরে ছেলেটি তো সুবীর নন্দীর মতন গলায় গান গাইছে। অথবা আহ ছেলেটি একেবারে সুবীর নন্দীর মতন দেখতে। সুবীর নন্দী আর আসবেন না।

নাট্য নির্মাতা সকাল আহমেদ লিখেন, আমার সাংবাদিকতার ক্যারিয়ারে শ্রেষ্ট ইন্টারভিউ নিয়েছিলাম এই মানুষটির। আহা কি অদ্ভুত ভালো মনের মানুষ ছিলেন। ভালো থাকবেন।

‘খাঁচা’ নির্মাতা আকরাম খান লিখেন, ৭১’র পর নতুন বাংলাদেশের স্বতন্ত্র সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক পরিচয় গড়ে তুলতে যেসব শিল্পীরা অবদান রেখেছেন তাঁদের মধ্যে কণ্ঠের জাদুকর সুবীর নন্দী অগ্রগণ্য। সুবীর নন্দী, আপনার কাছে আমাদের ঋণ অপরিসীম।আপনার নিষ্ঠা ও মূল্যবোধের ঐতিহ্যকে ধারণ করে উৎকর্ষতা অর্জনের লক্ষ্যে আমরা সাংস্কৃতিক আন্দোলন জারি রাখার শপথ করছি।

নাট্য নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী শোক প্রকাশ করে বলেন, সুবীর কাকা আপনি চলে গেলেন! আপনিও? আমার সিনেমার গানটা গাওয়া হলো না! একজন নক্ষত্রের পতন!

চিত্রনায়ক জায়েদ খান লিখেন, বাঙালির প্রাণের গায়ক, প্রাণের মানুষ সুবীর নন্দী আর কোন দিন গাইবেনা কোনো গান। সিঙ্গাপুর থেকেই চলে গেছেন না ফেরার দেশে। যেখানেই থাকুক, শান্তিতে থাকুক।

চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ খ্যাত শিল্পী ইমরান মাহমুদুল লিখেন, সুবীর নন্দী স্যার আর নেই…! ওপারে ভাল থাকবেন।

মডেল ও অভিনেত্রী মারিয়া নূর লিখেন, আমরা আরো একজন কিংবদন্তিকে হারালাম।

সুবীর নন্দীর গাওয়া গান দিয়েই শ্রদ্ধা জানান সংগীতশিল্পী মিফতা জামান। তিনি লিখেন,পাহাড়ের কান্না দেখে তোমরা তাকে ঝর্ণা বল/ওই পাহাড় টা বোবা বলেই কিছু বলে না/তোমরা কেনো বোঝো না যে/কারো বুকের দুঃখ নিয়ে কাব্য চলে না…

সংগীতশিল্পী শফিক তুহিন লিখেন, সুবীর’দা, বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালবাসা।

Bellow Post-Green View