চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাংলাদেশ কি মৌলবাদী হয়ে যাচ্ছে?

উগ্র সাম্প্রদায়িকতা, ধর্মান্ধতার বিষবাষ্প ছড়ানো অশুভ শক্তির কাছে খুব অসহায় মনে হচ্ছে আজকের বাংলাদেশকে। একের পর এক মুক্ত চিন্তার লেখক, শিক্ষক ব্লগার প্রকাশকরা খুন হচ্ছেন। রাস্তায়, বই মেলায় এমনকি ঘরে ঢুকে পৈশাচিক উল্লাসে খুন করে বুক ফুলিয়ে চলে যাচ্ছে খুনীরা।

বাংলাদেশের মুক্তচিন্তার লেখক, ব্লগারদের; খুন; বিষয়ে; ব্রিটিশ ‘দ্য গার্ডিয়ান’ পত্রিকায় ‘দ্য গুড মুসলিম’ ও ‘আ গোল্ডেন এজ’ লেখক তাহমিমা আনামের একটি প্রতিবেদনে এ বিষয়গুলি উঠে এসেছে।

মন্তব্য প্রতিবেদনে; তাহমিম আনাম লিখেছেন, ছোট বেলায় দেশের বাইরে থাকায় কেউ যদি জানত আমি বাংলাদেশী, তাদের স্বভাবসুলভ প্রশ্ন থাকত বাংলাদেশে কি খুব বন্যা হয়, বাংলাদেশীরা কি অনেক দরিদ্র ইত্যাদি।

কিন্তু বর্তমানে তারা প্রশ্ন করে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি, মুক্তমনা লেখকদের কেনো এভাবে খুন করা হচ্ছে, বাংলাদেশ কি মৌলবাদী দেশ হয়ে যাচ্ছে এসব নিয়ে।

বিজ্ঞাপন

তাহমিম আনাম আরও লিখেছেন, দেশের বাইরের মানুষ আরও জানতে চায় বাংলাদেশ আর পাকিস্তান কি একই দেশ কিনা, বাংলাদেশের নারীদের বর্তমান অবস্থা কী?, জলবায়ু পরিবর্তনে বাংলাদেশের ভবিষ্যত কী?

সম্প্রতি বাংলাদেশে সমকামীদের অধিকার বিষয়ক পত্রিকার সম্পাদক জুলহাস মান্নান ও তার বন্ধু তন্ময় হত্যা, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হত্যা, বৌদ্ধ ভিক্ষু হত্যা এসব হত্যাকাণ্ড নিয়ে যথেষ্ট উদ্বেগ প্রকাশ করছে বিদেশীরা।

প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, বিদেশীদের এমন প্রশ্নে আমি হতবাক না হয়ে বাংলাদেশকে ইতিবাচক প্রতিনিধিত্ব করার চেষ্টা করি সব সময়। আমি তাদের বলি, বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক দেশ। বাংলা নববর্ষে আমরা বাঁধ ভাঙ্গা উৎসব করি, বাংলাদেশ নদী মাতৃক ও কৃষি নির্ভর দেশ। দেশে শিক্ষার হার বেড়েছে, শিল্প প্রতিষ্ঠান সহ বড় বড় কর্মসংস্থান গড়ে উঠেছে।

বিদেশীদের ওপর খানিকটা ক্ষোভ ঝেড়ে তাহমিমা আনাম তার প্রতিবেদনে লিখেছেন, কেউ আমাকে জিজ্ঞেস করে না তোমার গ্রামের বাড়ি কেমন, তোমার পরিবারের কে কী করে, তোমার দেশে বর্ষায় প্রকৃতি কেমন থাকে, তোমার দেশে বসন্তকালে কোয়েল পাখির গান কেমন, কেন মিষ্টি ফল লিচুর মৌসুম মাত্র দুই সপ্তাহ থাকে?

তাহমিম আনাম আরও লিখেছেন, বাংলাদেশের বিষয়ভিত্তিক ইতিহাস নিয়ে আমায় প্রশ্ন করুন আমি যথাযথ উত্তর দিবো। কিন্তু বাংলাদেশের ভেতরের এখনকার পরিস্থিতি কী তা জিজ্ঞেস করে আমাকে জটিলতার মধ্যে ফেলবেন না। আপনাদের এসব প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য সাংবাদিক আছেন, নীতি নির্ধারকরা আছে, এগুলো তাদেরকে গিয়ে বলেন।

বিজ্ঞাপন