চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাংলাদেশি সমর্থকদের এখন গর্বের সময়

ক্রিকেটে এক সময় বাংলাদেশ মানে ছিল ‘নিশ্চিত হার’। জিতলেও তাকে অঘটন বলা হতো। প্রায় দুই দশক ধরে এভাবে ক্রিকেট নিয়ে থাকতে হয়েছে দেশবাসীকে। এখন দিন বদলেছে। আরেকটি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি যখন সামনে, তখন বাংলাদেশ মানে শক্ত প্রতিপক্ষ। বিবিসি রেডিও-১ এর সাংবাদিক রওশন আলম এমন সময়ে বাংলাদেশি সমর্থকদের জন্য আবেগী একটি কলাম লিখেছেন। হাফিংটনপোস্টের ব্লগে লেখা ওই কলামে তিনি তুলে ধরেছেন, কেন বাংলাদেশি সমর্থকরা মাশরাফিদের নিয়ে গর্ব করতে পারে এবং আশায় থাকতে পারে।

রওশন লিখেছেন, ‘দল হারে। দল জেতে। সমর্থকরা সমর্থন করে যান। ১৯৯২ সালে পাকিস্তান বিশ্বকাপ জিতেছিল। ৯৬তে শ্রীলঙ্কা। দুটোই বাজির বিপক্ষে ছিল। ২০১৭তে বাংলাদেশও একই কাজ করে দেখাতে পারে।’

বিজ্ঞাপন

২০১৭ বলতে রওশন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিকে বোঝাতে চেয়েছেন। তিনি বলছেন, ‘টুর্নামেন্টের আগে প্রচুর প্রতিবেদন লেখা হচ্ছে। কোন দল কেমন সে বিষয়ে পরিসংখ্যান ভিত্তিক অনেক লেখা পড়ছি। আমার এই লেখাটি তেমন কিছু নয়।’

‘এটা লিখলাম আশাবাদী বাংলাদেশি সমর্থকদের জন্য। যারা চান তার দল ভালো করুক, কিন্তু জানেন না ক্রিকেট নিয়ে আলোচনার সময় কী বলতে হয়। এই লেখাটা তাদের জন্য, যারা ক্রিকেট বিতর্কের সময় ঘুরে দাঁড়াতে চান, যারা বোঝাতে চান কেন তারা বিশ্বাস করেন বাংলাদেশ জিতবে।’

‘এই লেখায় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির গ্রুপপর্ব থেকে আলোচনা করবো। এবং ব্যাখ্যা করবো কেন তারা যেকোনো প্রতিপক্ষকে হারাতে পারে।’

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। এই ম্যাচে ইংল্যান্ড ফেভারিট হলেও রওশন বাংলাদেশকে নিয়ে দারুণ আশাবাদী, ‘বাংলাদেশি সমর্থকদের আশায় থাকার মতো অনেককিছু আছে। সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিষয় হলো শেষ দুটি বিশ্বকাপে তারা ইংল্যান্ডকে হারিয়েছে। দুই দলের শেষ সাত ম্যাচের মধ্যে বাংলাদেশ জিতেছে চারটিতে। তাদের শেষ দেখা হয় টেস্টে। সেখানে বাংলাদেশ ঐতিহাসিক জয় পেয়েছে।’

‘সমর্থকরা আরও গুরুত্ব দিতে পারেন দুই দলের শেষ ওয়ানডে সিরিজের বিষয়ে। একটু এদিক-ওদিক হলে বাংলাদেশ সিরিজ জিততে পারতো। প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ জয়ের পথেই ছিল। কিন্তু ১৭ রানে ছয় উইকেট পড়ে যাওয়ার পর সেটি সম্ভব হয়নি।’

কন্ডিশন ইংল্যান্ডের পক্ষে থাকবে। তাতে বাংলাদেশের জন্য তেমন কিছু আসবে-যাবে না বলে মনে করছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের পোড় খাওয়া ভক্ত রওশন, ‘এপ্রিল থেকে বাংলাদেশ এই কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছে। পরিকল্পনা গুছিয়ে আনতে অনেক সময় পাবে তারা। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলতে পছন্দ করেন এমন খেলোয়াড় আছে তাদের; লর্ডসের অনার্স বোর্ডে তামিম ইকবালের নাম আছে, মাহমুদউল্লাহও ফর্মে ফিরছেন, মোস্তাফিজুর রহমানের হাত নিশ্চয়ই নিশপিশ করছে।’

বিজ্ঞাপন