চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপকমিটির সভা অনুষ্ঠিত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের লক্ষ্যে গঠিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির মিডিয়া, প্রচার ও ডকুমেন্টেশন উপকমিটির ৮ম সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। উপকমিটির সদস্য সচিব তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মকবুল হোসেনের সঞ্চালনায় এ সভায় সভাপতিত্ব করেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। স্বাগত বক্তব্য দেন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী।

হাজার বছরের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ধাপে ধাপে গণআন্দোলনের মাধ্যমে স্বাধীন জাতিরাষ্ট্র বাংলাদেশের জন্ম দিলেও বঙ্গবন্ধুকে মহান নেতা হিসেবে গড়ে তুলতে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছার অবদান অনস্বীকার্য, এ কথা জানিয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ তার মন্ত্রণালয় থেকে বঙ্গমাতার জীবন ও কর্মভিত্তিক তথ্যচিত্র নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে বলে সিদ্ধান্ত দেন। এছাড়াও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সাথে ঘনিষ্ঠভাবে সম্পৃক্ত ছিলেন, এমন নানা পর্যায়ের ব্যক্তিত্ত্বদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে নানা তথ্য সংগ্রহের উদ্যোগ নেওয়া হবে বলেও তিনি সভাকে অবহিত করেন।

বিজ্ঞাপন

প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী তার বক্তব্যে বিদ্যমান কোভিড-১৯ জনিত পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনা অনুযায়ী জনসমাগম পরিহার করে মুজিববর্ষের কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে জানিয়ে আগামী ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত মুজিববর্ষের আয়োজনকে আরও বিস্তৃত করা হবে বলে জানান।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপনের লক্ষ্যে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন মিডিয়া, প্রচার ও ডকুমেন্টেশন উপকমিটির বাস্তবায়িত নানা কর্মসূচি নিয়ে সভায় বিস্তারিত আলোচনা হয়।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, তথ্য কমিশনার আবদুল মালেক, বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক সোহরাব হোসেন, বাংলাদেশ বেতারের মহাপরিচালক আহম্মদ কামরুজ্জামান, গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বিধান চন্দ্র কর্মকার, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কালাম আজাদ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, বিশিষ্ট কবি তারিক সুজাত, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন এর সাবেক সভাপতি ইকবাল সোবহান চৌধুরী, দৈনিক আমাদের নতুন সময় এর সম্পাদক নাইমুল ইসলাম খান, ভোরের কাগজ এর সম্পাদক শ্যামল দত্ত, সাংবাদিক মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, জাতীয় প্রেস ক্লাব এর সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, জাতীয় প্রেস ক্লাব এর সাবেক সভাপতি সাইফুল আলম, এটিএন বাংলা’র প্রধান বার্তা সম্পাদক জ.ই মামুন, সাংবাদিক শাহেদ চৌধুরী, ৭১ টিভির সাংবাদিক ফারজানা রুপা, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জন কূটনীতি অনুবিভাগের পরিচালক প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য এবং জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির কার্যালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ।

বিজ্ঞাপন