চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বক্স অফিস মাতানো হলিউডের দুই ছবি ঢাকায়

করোনায় সিনেমা হল বন্ধ থাকায় একের পর এক প্রস্তুতি নিয়েও হলিউডের সিনেমা মুক্তি দিতে না পারায় এক বছর আগের তুলনায় গত বছর ৮০ শতাংশ কমেছে হলিউডের বক্স অফিসের আয়।

তবে আশা জাগানিয়া খবর হলো গত মে মাসে খুলেছে প্রেক্ষাগৃহগুলো। দর্শকও হলমুখী হয়েছেন। এরই মধ্যে মুক্তি পাওয়া কিছু ছবির বক্স অফিস রিপোর্টও আশাব্যঞ্জক।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

গত ৪ জুন যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি পেয়েছে ‘দ্য কনজ্যুরিং: দ্য ডেভিল মেইড মি ডু ইট’। মুক্তির প্রথম দিনেই সর্বোচ্চ আয়ের রেকর্ড গড়েছে এই ছবি। প্রথম দিনেই এই ছবি আয় করে নিয়েছে প্রায় ১০ মিলিয়ন ডলার।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে, ২৮ মে মুক্তি পায় ‘ক্রুয়েলা’। ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বাজেটের এই ছবিটি এরই মধ্যে বিশ্বব্যাপী প্রায় সাড়ে ১১২ মার্কিন মিলিয়ন ডলার আয় করেছে। বাংলাদেশের দর্শকদের জন্য সুখবর হলো, বক্স অফিসে প্রাণ ফেরানো এ দু’টি ছবি মুক্তি পেয়েছে স্টার সিনেপ্লেক্সে।

হলিউডের সেরা দশ ভৌতিক ছবির একটি ‘দ্য কনজ্যুরিং’। ২০১৩ সালে প্রথম ছবি দিয়েই তুমুল আলোড়ন। তিন বছর পর দ্বিতীয় ছবিও কাঁপিয়ে তোলে দর্শকমহল। এরপর থেকে ‘কনজ্যুরিং’-এর নাম শুনলেই দর্শকদের হাড় হিম হয়ে আসে রীতিমত। ভৌতিক ছবির ভক্তরা মুখিয়ে থাকেন এ সিরিজের ছবির জন্য। তাই নতুন ছবি মুক্তির পর করোনা মহামারীর মধ্যেও হুমড়ি খেয়ে পড়েছে দর্শক।

আর ক্রেইগ গিলেস্পি পরিচালিত ‘ক্রুয়েলা’ ২০২০ সালে মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে মুক্তি পায়নি। ছবিটি নির্মিত হয়েছে ১৯৬১ সালে মুক্তি পাওয়া ডডি স্মিথের উপন্যাস অবলম্বনে ‘ওয়ান হান্ড্রেড অ্যান্ড ওয়ান ডালমেশিয়ান’ ছবির ক্রুয়েলা নামের এক নারীকে নিয়ে। যার পুরো নাম ক্রুয়েলা ডে ভিল। যে সাদা-কালো ডালমেশিয়ান কুকুরের চামড়া দিয়ে কোট বানায়।

মজার ব্যাপার হচ্ছে, এবারের ক্রুয়েলার এক্সিকিউটিভ প্রডিউসারও গ্লেন ক্লোজ! ২০২১ সালে এসে এমা স্টোনের ক্রুয়েলা কি অতীতের গৌরব ফিরিয়ে আনতে পারবে-এটাই এখন দেখার বিষয়।