চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘ফিল্মকে ভালোবেসে মেয়েকে অভিনয়ে আনলাম, এটা কি আমার অপরাধ?’

‘ফিল্মে অনেক বড় বড় মানুষ ছিলেন। তাদেরও ছেলে মেয়ে আছে। কিন্তু তাদের কারো মেয়েকেতো সিনেমায় আসতে দেখিনি। তাহলে ফিল্মকে ভালোবেসে, সংস্কৃতিকে ভালোবেসে আমি আমার মেয়েকে সিনেমায় আনলাম, এটা কি আমার অপরাধ?’

মেয়ে প্রার্থনা ফারদিন দীঘিকে সিনেমায় আনার প্রসঙ্গে আক্ষেপ নিয়ে উপরের কথাগুলো চ্যানেল আই অনলাইনকে বললেন আশির দশকের জনপ্রিয় অভিনেতা ‘হারানো সুর’ খ্যাত সুব্রত।

বিজ্ঞাপন

নায়িকা হিসেবে মুক্তির প্রতীক্ষায় আছে প্রার্থনা ফারদিন দীঘির প্রথম ছবি ‘তুমি আছো তুমি নেই’। আর এই সিনেমা মুক্তির আগেই চলছে নানা সমালোচনা। শোনা যাচ্ছে, নিজের মুক্তি প্রতীক্ষিত প্রথম ছবি নিয়ে দীঘির নেতিবাচক একটি মন্তব্যের কারণে তার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতিও নিয়েছেন এই ছবির পরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টু।

ক’দিন আগেই ইউটিউবে প্রকাশিত হয়েছে ‘তুমি আছো তুমি নেই’ এর ট্রেলার। যা প্রকাশের পর চলচ্চিত্রপ্রেমীরা সমালোচনায় মাতেন। অনেকে মন্তব্য করেন, ২০২১ সালে এসে এমন সিনেমা অনভিপ্রেত। অনেকে দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর মতো অভিজ্ঞ নির্মাতার কাছে সময়োপযোগী সিনেমার প্রত্যাশার কথাও জানান।

শুধু সমালোচনা নয়, ছবির ট্রেলার দেখে সামাজিক মাধ্যমে হাস্যরসেও মাতেন সিনেমা প্রেমীদের বড় অংশ। যা দৃষ্টি এড়ায়নি নায়িকা হিসেবে অভিষিক্ত হওয়ার দ্বারপ্রান্তে থাকা দীঘির। তিনিও নিজের প্রথম ছবির ট্রেলার দেখে বিরূপ মন্তব্য করেন। বিব্রত দীঘি গণমাধ্যমকে জানান, ‘ট্রেলারের যদি এমন অবস্থা হয় তাহলে সিনেমা দেখতে কে প্রেক্ষাগৃহে আসবে?’

দীঘির এমন মন্তব্যের জেরে নাখোশ হন ছবির পরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টু। তিনি বলেন, দীঘির এমন মন্তব্যের কারণে দর্শকের উপর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। সিনেমা হলে দর্শক কম আসবে, কারণ নায়িকাইতো ছবিটি খারাপ হবে বলে দিয়েছেন।

ঝন্টু মনে করেন, দীঘির এই মন্তব্যটির কারণে নির্মাতারও মানহানি হয়েছে। আর সে কারণেই তিনি মামলার কথাও বলেন। বিভিন্ন গণমাধ্যম থেকে শোনা যাচ্ছে, ইতোমধ্যে দীঘির বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ঝন্টু।

এ বিষয়ে জানতে দীঘির বাবা অভিনেতা সুব্রত’র সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত কোনো কাগজ হাতে পাননি। তিনিও গণমাধ্যমে বিষয়টি শুনেছেন।

সুব্রত বলেন, ‘পারিশ্রমিক চাইতে গেলেই যদি নেতিবাচক কথাবার্তা শুনতে হয়, তাহলে কী আর বলবো! তাও একজন অভিজ্ঞ মানুষের কাছ থেকে।’

দীঘির পারিশ্রমিক কি দেয়া হয়নি? এমন প্রশ্নে সুব্রত বলেন, না। এখনও পুরো পারিশ্রমিক পরিশোধ করেননি। ছবি মুক্তির বাকি কয়েক দিন, পারিশ্রমিক ক্লিয়ার না করে প্রমোশনে ডাকলে কীভাবে হয়! আপনি সিনিয়র মানুষ, আপনার কথায় সব করে দিয়েছি। ডাবিং পর্যন্ত সম্পন্ন হয়েছে, অথচ পারিশ্রমিক এখনও পরিশোধ হয়নি। আজকে না কালকে, এরকম অনেক হয়েছে। তবুও মেনে নিয়েছি, কারণ আপনি সম্মানীয় মানুষ। আমি নিজেও ফিল্ম ক্যারিয়ারে প্রথমবার এই ছবির মাধ্যমে তার সঙ্গে কাজ করলাম।

দীঘিকে পুরো পারিশ্রমিক না দেয়ার অভিযোগ নিয়ে ‘তুমি আছো তুমি নেই’ এর প্রযোজক সিমি ইসলাম কলির কাছে জানতে চাইলে তিনিও চ্যানেল আই অনলাইনের কাছে বিষয়টি স্বীকার করেন। সিমি বলেন, হ্যাঁ, দীঘির পারিশ্রমিক ১ লাখ টাকা বাকি আছে। কিন্তু তার সাথে আমার চুক্তি হয়েছিলো যে তার কাজ শেষ হবে, তারপর পাওনা টাকা সে নিয়ে যাবে। তারসাথে এভাবেই কথা ছিলো। একদিনের শুটিং বাকি ছিলো, একটা গানের কিছু অংশ শুট করার কথা ছিলো। কিন্তু দীঘি কথামত সেই সময় দেয়নি।

ট্রেলার প্রকাশের পর দীঘির বিরূপ মন্তব্যে হতাশ এই প্রযোজকও। দীঘির বিরুদ্ধে অভিযোগ করে তিনি বলেন, গত ২৮ তারিখ থেকে দীঘিকে পাওয়া যায়নি। দীঘির মামা আমাকে বলেছে, ছবির ট্রেলার দেখে সে নাকি ডিপ্রেসনে চলে গেছে। দীঘি নাকি অসুস্থ হয়ে পড়েছে। সিনেমার এডিটিং চলাকালেও নিয়মিত দীঘির সাথে আমার যোগাযোগ হয়েছে। তাকে ট্রেলার এডিটং শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পাঠিয়েছি, সে আমাকে বলেছে ‘দারুণ হয়েছে!’। তাহলে আজ কী এমন হলো যে দীঘি বলছে আমার ছবিটি ভালো হয়নি।

সিমি বলেন, প্রযোজক হিসেবে আমিতো ক্ষতিগ্রস্ত। করোনাকালের মধ্যে আমি দীঘিকে নিয়ে রিস্ক নিয়েছি। আমার সাথে ছবি মুক্তির আগ মুহূর্তে এসে দীঘির এমন করা মোটেও ঠিক হয়নি। কারণ এরআগে এই ছবির জন্য বাপ্পী এবং সাইমনকে নিয়েছিলাম, তখনও আমার টাকা খরচ হয়েছে। শুরু থেকেই আমি ক্ষতিগ্রস্ত। এগুলোতো দীঘি জানে, তারপরেও সে কেন এমন করলো? আর সে কারণেই আমি আইনের কাছে বিচার চাইতে চাই, দীঘি কেন এমনটা করলো?

পরিচালক, প্রযোজকের মামলার ‘খবর’ নিয়ে সুব্রত বলেন, যেহেতু কোনো অফিশিয়াল কাগজ আমরা পাইনি, তাই এখনই এসব নিয়ে কথা বলতে চাই না।

তবে ‘মালা বদল’ ছবির এই অভিনেতা বলেন, আমরা যদি কোনো ভুল করে থাকি, আমরা যদি অপরাধ করেই থাকি- তারজন্যতো অন্তত ক্ষমা চাওয়ার সুযোগ দিতে হবে। কিন্তু সেটা কার কাছে চাইবো? গত তিন ধরে ঝন্টু সাহেব, তার ছেলে, এই ছবির প্রযোজক সিমি এবং তার স্বামীর নাম্বারে অনবরত কল করেছি- কিন্তু কেউই ফোন রিসিভ করেননি।

তবে সুব্রত’র ফোন দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন প্রযোজক সিমি ইসলাম কলি।

‘তুমি আছো তুমি নেই’ ছবিটি দেশব্যাপী মুক্তি পাচ্ছে আগামি ১২ মার্চ। ছবিতে দীঘি ছাড়াও অভিনয় করেছেন আসিফ ইমরোজ, সুব্রত চক্রবর্তী, অমিত হাসান, শবনম পারভীন প্রমুখ। অভিনয়ের পাশাপাশি এই ছবিটির প্রযোজক সিমি ইসলাম কলি।

বিজ্ঞাপন