চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ফিলিস্তিনিদের দুর্দশার গল্প তুলে ধরা হয়েছে যে দশ সিনেমায়

পৃথিবীর কাছে নিজেদের তুলে ধরার জন্য সিনেমাই যেন ফিলিস্তিনিদের ভাষা। যুগে যুগেই ফিলিস্তিনিরা সিনেমায় তুলে ধরেছেন নিজেদের সংকট, নিপীড়িত ও নির্যাতিত হওয়ার গল্পগুলো। তেমনই ১০টি ছবি নিয়ে সাজানো হয়েছে ফিচারটি। হানি আবু আসাদ, এলিয়া সুলেইমান, মাইকেল খালেইফি সহ অনেক গুণী নির্মাতার ছবি আছে এই তালিকায়।

ওয়েডিং ইন গালিলি (১৯৮৭): এই ছবি যখন মুক্তি পেয়েছিল তখনও পুরো বিশ্বের মানুষের কোনো ধারণা ছিল না যে ফিলিস্তিনে এত ভালো সিনেমা তৈরি হয়। ১৯৪৮-এর যুদ্ধের সময় ফিলিস্তিনের একটি মিলিটারি গভর্নর শাসিত গ্রামের এক বিয়ের গল্প নিয়ে এই সিনেমা। পরিচালনা করেছেন মাইকেল খালেইফি।

বিজ্ঞাপন

জেনিন, জেনিন (২০০২): জেনিন এর যুদ্ধ নিয়ে তৈরি এই ছবিতে তুলে ধরা হয়েছে নানা হৃদয় বিদারক ঘটনা। সাথে আছে জেনিন এর ভুক্তভোগী অনেকের সাক্ষাৎকার। পরিচালনা করেছেন মোহাম্মদ বাকরি।

ক্রনিকল অব অ্যা ডিসঅ্যাপিয়ারেন্স (১৯৯৬): ফিলিস্তিনি নির্মাতা এলিয়া সুলাইমান পরিচালিত প্রথম ছবি এটি। সুলেইমানের নিজের জীবন নিয়েই তৈরি হয়েছে এই ছবি।

প্যারাডাইস নাও (২০০৬): হানি আবু-আসাদ পরিচালিত এই ছবি দুজনকে ঘিরে যারা ইসরায়েলে আত্মঘাতী হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তাদের মনস্তাত্ত্বিক নানা দিক তুলে ধরা হয়েছে ছবিতে। এটি সেরা বিদেশী ভাষার চলচ্চিত্র হিসেবে গোল্ডেন গ্লোব পুরষ্কার জিতেছিল এবং একই বিভাগে একাডেমি পুরষ্কারের জন্য মনোনীত হয়েছিল।

দ্য টাইম দ্যাট রিমেইনস (২০০২): এলিয়া সুলাইমান পরিচালিত ফিলিস্তিনি ছবি ‘দ্য টাইম দ্যাট রিমেইনস’ সেমি-অটোবায়োগ্রাফিক্যাল ড্রামা। ছবিটি ২০০৯ সালে কান উৎসবে দেখানো হয়েছিল। পুরো বিশ্বের সিনেমাপ্রেমীদের প্রশংসা পেয়েছে এই ছবি।

আমরিকা (২০০৯): ফিলিস্তিনি এক সিঙ্গেল মা ও তার টিনেজ ছেলেকে নিয়ে এই ছবির গল্প। আমেরিকায় ফিলিস্তিনি হিসেবে বসবাস করার কঠিন বাস্তবতা দেখানো হয়েছে ছবিতে। পরিচালনা করেছেন চেরিয়েন ডাবিস।

মেয়র (২০২০): ফিলিস্তিনিদের জীবন নিয়ে তৈরি এই ছবিটি কোনো ফিলিস্তিনি নয়, আমেরিকান নির্মাতা ডেভিড ওসিত নির্মাণ করেছেন।

সলোমন’স স্টোন (২০১৫): ব্ল্যাক কমেডি ঘরানার এই ছবি হুসেইন নামের এক ফিলিস্তিনিকে ঘিরে যে ইসরায়েলি পোস্ট অফিস থেকে একটি চিঠি পায়। চিঠিতে তাকে একটি প্যাকেজ রিসিভ করার জন্য সশরীরে আসতে বলা হয়। সেই প্যাকেজটি গ্রহণ করতে তাকে ২০ হাজার ডলার খরচ করতে হয়েছে। কৌতূহলের বশে প্যাকেজের জন্য নিজের সহায়-সম্পত্তি সব বিক্রি করে ফেলেন। এরপর বদলে যায় তাদের জীবন। পরিচালনা করেছেন রামজি মাকদিসি।

স্ট্রবেরি (২০১৭): ৪৩ বছর বয়সী সামির জুতার দোকানের মালিক। কখনো সমুদ্র দেখেননি তিনি। সমুদ্র দেখার আশায় তিনি বেশ কয়েকজন নির্মাণ শ্রমিকের সঙ্গে ইসরায়েলের বর্ডার পার হন। এরপর ঘটনা ক্রমে একজনের অনুরোধে কনস্ট্রাকশন সাইটে কাজ করা শুরু করতে হয় তাকে। ছবিটি পরিচালনা করেছেন আইদা কাদান।

রুফ নকিং (২০১৭): রমজানে ইফতারের আগে গাজায় এক নারী তার পরিবারের জন্য খাবার তৈরি করছিলেন। এমন সময় ফোন আসে। এক ইসরায়েলি সৈন্য তাকে জানায়, ১০ মিনিট পরে তাদের ভবনটি বোমা মেরে উড়িয়ে দেয়া হবে। সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন সিনা সালিমি।

বিজ্ঞাপন