চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ফরিদপুরে মুড়িকাটা পেঁয়াজের দাম পাচ্ছেন না কৃষক

ফরিদপুরে মুড়িকাটা পেঁয়াজের দাম হঠাৎ কমে যাওয়ায় লোকসানের মুখে পড়েছেন কৃষক। স্বল্পকালীন সময়ে চরাঞ্চলের মুড়িকাটা পেঁয়াজের ব্যাপক চাহিদা থাকে বাজারে। কিন্তু কৃষক কাঙ্খিত বাজার পায়নি এবার।

ফরিদপুর, রাজবাড়ী, কুষ্টিয়া ও পাবনার চরাঞ্চলে মুড়িকাটা পেঁয়াজ আবাদ হয় সবচেয়ে বেশী। নভেম্বর থেকে জানুয়ারি মাস পর্যন্ত বাজারে পেঁয়াজের সংকট থাকে। স্বল্পকালীন এ সময়টিতে পেঁয়াজের চাহিদা মেটাতে চরাঞ্চলের কৃষক আবাদ করেন মুড়িকাটা পেঁয়াজ।

ফরিদপুরের এক পেঁয়াজ চাষী বলেন, গত বছর তারা এই পেঁয়াজ ১২শ’ টাকা মণ বিক্রি করেছে অথচ এবার সেই পেঁয়াজ চারশ’ থেকে ছয়শ’ টাকা মনে বিক্রি করতে হচ্ছে এবার। এ কারণে তাদের লোকসান হচ্ছে।বীজ থেকে চারা এবং চারা থেকে কন্দ উৎপাদন হওয়ায় এ জাতের পেঁয়াজ আবাদে গুটি বেশি লাগে।

Advertisement

কৃষকরা বলেন ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি ও নতুন ধরনের অন্যান্য পেঁয়াজ বাজারে আসায় কমে গেছে মুড়িকাটা পেঁয়াজের চাহিদা।

ফরিদপুরের মশলা গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এ কে এম কামরুজ্জামান বলেন, এই ধরণের পেঁয়াজ আবাদে কৃষকের প্রাথমিক খরচ বেশি হয়। কিন্তু এই সময়টাতে পেঁয়াজের সংকট থাকায় তারা দামটা বেশি পায় বলে তারা এটা চাষ করে থাকে।

এ বছর জেলায় মুড়িকাটা পেঁয়াজের আবাদ হয়েছে পাঁচ হাজার একশো’ ৬৪ হেক্টর জমিতে। যা থেকে প্রায় ৫৬ হাজার তিনশ’ ৩৯ মেট্রিক টন পেয়াজ উৎপাদন হবে বলে আশা সংশ্লিষ্টদের।