চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘প্রস্তুতি ছিলো বলে তুমুল বৃষ্টিতেও রক্ষা বইমেলার’

তুমুল বৃষ্টি রোববার সকাল থেকেই। সঙ্গে শীলা আর ঝড়। তবে এতকিছুর মধ্যেও বইমেলার তেমন একটা ক্ষতি হয়নি বলেই জানালেন তাম্রলিপির প্রকাশক এ কে এম তারিকুল ইসলাম।

চ্যানেল আই অনলাইনকে তিনি বলেন, প্রতিবছরই ফেব্রুয়ারিতে দেখা যায় ঝড়-বৃষ্টি হয়। এবারও সেই কথা মাথায় রেখে আগে থেকেই প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিলো।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

‘মানসিক প্রস্তুতিও ছিলো সবার যে এমন একটা দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাছাড়া আবহাওয়া পূর্বাভাস জেনে বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির পক্ষ থেকে গতকাল নোটিশও দেওয়া হয়েছিলো যে আগামী তিনদিন বৃষ্টি থাকতে পারে। সবাই মোটামুটি সেই নোটিশ অনুযায়ীই ব্যবস্থা নিয়েছিলো। ফলে অনেকটাই কমে এসেছে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ।’

পাললিক সৌরভের নির্বাহী পরিচালক মেহেদী হাসান শোয়েব এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন: গত কয়েকবছর ধরে বৃষ্টি আশঙ্কার জন্য কর্তৃপক্ষ টিনের চাল দিতে শুরু করেছেন। কিন্তু সেই বিষয়টা পরিকল্পনার অভাবে প্রায় দায়সারা হয়ে উঠেছে।

‘‘স্টলগুলো, বিশেষ করে এক এবং দুই ইউনিটের স্টলগুলো সামনে পেছনে এমনভাবে যে তাদের যেকোনো একদিকের স্টলের দিকে চালের ঢালুদিক পড়বেই। এবং এবছর টানা আটটি করে স্টল হওয়ায় এখানে ঢালু দিকে মাঝখানে যাদের স্টল পড়েছে তারা চাইলেও নিজেদের মতো করে কোনো পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা করতে পারবে না। অথচ খুব সহজেই পুরো আট ইউনিটের জন্যই যদি একটা পানি নিষ্কাশন পথ চালের সাথেই করে দেয়া হতো, তাহলেই সমস্যা হয় না কোনো। এটা প্রকাশকদের জায়গা থেকে সম্ভব না, মেলা কর্তৃপক্ষর দিক থেকেই করা উচিত।’’

Bellow Post-Green View