চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘প্রধানমন্ত্রীকে কেনো নির্দেশ দিতে হবে? আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কোথায়?’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সেলিমা রহমান বলেছেন, বরগুনায় রিফাতকে কুপিয়ে হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা প্রমাণ করে দেশে কোনো ন্যায়বিচার নেই।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘‘প্রতিহিংসার রাজনীতি ন্যায়বিচার এবং বেগম খালেদা জিয়া’’ শীর্ষক নাগরিক অধিকার আন্দোলন ফোরাম আয়োজিত মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

সেলিমা রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে কেনো নির্দেশ দিতে হবে? আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কোথায়? রক্ষার দায়িত্বশীলরা কোথায় গেলেন?যাদের দায়িত্ব তারা কেন পালন করছেন না?এর মানে দেশে ন্যায়বিচার নেই।

তিনি বলেন, সবাই দেখেছেন বরগুবায় কিভাবে প্রকাশ্যে দিবালোকে কুপিয়ে রিফাতকে হত্যা করা হয়েছে। সাধারণ মানুষও এগিয়ে আসেনি। পুলিশ তো আসেইনি। আজকে মূল্যবোধ হারিয়ে গেছে। ডিজিটাল বাংলাদেশের নামে, বড় প্রজেক্টের নামে ন্যায়বিচার আড়াল হয়ে গেছে। এখনো সাগর-রুনির বিচার হয়নি। কারণ বিচারহীনতা। বিচারব্যবস্থা শেষ করে দিয়েছে সরকার। তারা দুর্নীতি দিয়ে বড় হওয়ার পথে আছে।

বিজ্ঞাপন

বিএনপির এই নেতা আরো বলেন, গত দশ বছরের কথা বাদ দিলাম। গত এক বছরে যেসব ঘটনা ঘটেছে তার কোনো বিচার হয়নি। কারণ ন্যায়বিচার নেই।

এসময় তিনি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির মাধ্যমে দেশে ন্যায়বিচার ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে বলে মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। তার জন্য প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। তার জন্য কথা বলতে হবে।

সভায় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, প্রতিহিংসার বিজ বপন করেছেন শেখ হাসিনা। এখান থেকে আমরা মুক্ত হতে পারবো কিনা জানি না। প্রতিহিংসাপরায়ণ মানসিকতার কারণেই আজকে ন্যায়বিচার পালিয়ে গেছে। রাষ্ট্রের সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলো দলীয় হয়ে গেলে সেখানে এই অবস্থা তৈরি হয়।

তিনি বলেন, গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচার একাকার হয়ে গেছে খালেদা জিয়ার মুক্তির ভেতর। তাকে মুক্ত করতে হবে। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির মাধ্যমে ন্যায়বিচার কায়েম হবে।

Bellow Post-Green View