চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

প্রথম সুযোগেই নিজেকে চেনাচ্ছেন খালেদ

গেল বিপিএলে ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে খেলে পেয়েছিলেন পরিচিতি। তারপর থেকেই ঢাকা লিগ ও প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে নিয়মিত খেলছেন সৈয়দ খালেদ আহমেদ। দীর্ঘদেহী এই পেসার বাংলাদেশ ‘এ’ দলে প্রথম সুযোগেই বাজিমাত করছেন।

চট্টগ্রামে চারদিনের ম্যাচে প্রথমদিনে শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের উইকেট পড়েছে ৪টি। যার ৩টিই নিয়েছেন শরিফুল ইসলামের জায়গায় বদলি হয়ে দলে আসা সিলেটের পেসার খালেদ। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে চার দফা বৃষ্টির বাগড়ায় খেলা হয়েছে ৬০.২ ওভার। লঙ্কানরা তুলেছে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৭১ রান।

বিজ্ঞাপন

লাহিরু থিরিমান্নে ৬৬ রানে ও চারিথ আশালঙ্কা ১২ রানে অপরাজিত থেকে দিনের খেলা শেষ করেছেন।

সকালে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় শ্রীলঙ্কা। স্কোরবোর্ডে ১২ রান তোলার পরই লাহিরু মিরান্থা উইকেটের পেছনে জাকির হাসানকে ক্যাচ দেন, বোলার খালেদ। এরপর শ্রীলঙ্কা টেস্ট দলের ওপেনার দিমুথ করুনারত্নের সঙ্গে লাথিরু থিরিমান্নের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় সফরকারীরা। দ্বিতীয় উইকেটে তারা যোগ করেন ৮৫ রান।

শুরুর সাফল্যের পর ভয়ঙ্কর হতে থাকা দ্বিতীয় উইকেট জুটিও ভাঙেন খালেদ। অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে ৬১ করে যখন সাজঘরে ফেরেন দলের রান তখন ৯৭ রান।

বিজ্ঞাপন

থিরিমান্নে অবশ্য আসান প্রিয়াঞ্জনকে নিয়ে লড়ে যাচ্ছিলেন। তবে দুজনের জুটি ৪৬ রান করার পর আবু হায়দার রনির আঘাত। ২৩ রান করা প্রিয়াঞ্জনকে উইকেটের পেছনে জাকিরের ক্যাচ বানান এ বাঁহাতি পেসার।

১৪৩ রানে তৃতীয় উইকেট হারানোর পর চতুর্থ উইকেট পড়তে সময় লাগেনি। সাদিরা সামারাবিক্রমাকে ২ রানে আউট করে নিজের তৃতীয় শিকার বানান খালেদ।

ঘরোয়া ক্রিকেটে খালেদের ক্যারিয়ার অতটা সমৃদ্ধ না হলেও বড় মঞ্চে যে খুব কার্যকরী হবেন, সেটির প্রমাণই যেন দিচ্ছেন প্রথম সুযোগেই। এদিন ১৪ ওভারে ৩৭ রান দেন এই পেসার। যার মধ্যে ৬টি মেডেন।

সম্প্রতি চম্পকা রামানায়েকের অধীনে কক্সবাজারে হওয়া পেস বোলিং ক্যাম্পে ছিলেন খালেদ। তার আগে বিভিন্ন সময় জাতীয় দলের নেটে বোলিং করে নিজেকে শাণিত করেছেন। যার পুরোটাই নিংড়ে দিচ্ছেন লঙ্কানদের বিপক্ষে।

প্রথমদিন হাত ঘুরিয়েছেন সাত বোলার। সর্বোচ্চ ১৫ ওভার করেছেন তরুণ অফস্পিনার নাঈম হাসান। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, সৌম্য সরকার নাজমুল ইসলাম অপুর সঙ্গে অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও বোলিং করেছেন। তবে সাফল্য এনে দিতে পেরেছেন খালেদ, আর আবু হায়দারই।

টাইগারদের ‘এ’ দলের একাদশে সুযোগ পেয়েছেন ঘরোয়া ক্রিকেটের রানমেশিন তুষার ইমরান। টেস্ট দল থেকে বাদ পড়া সাব্বির রহমান আছেন একাদশে। জায়গা হয়নি অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক ও সহ-অধিনায়ক আফিফ-সাইফের।