চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদের পদত্যাগপত্র গৃহীত

তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসানের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

মঙ্গলবার ৭ ডিসেম্বর রাতে এ বিষয়ে সরকারি গেজেট প্রকাশিত হয়েছে।

এতে বলা হয়, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের পদত্যাগপত্র রাষ্ট্রপতি কর্তৃক গৃহীত হয়েছে। এ পদত্যাগ অবিলম্বে কার্যকর হবে।

এর আগে দুপুরে দফতরে পদত্যাগপত্রটি পাঠান ডা. মুরাদ। এরপর বিকেল ৩টায় মন্ত্রিপরিষদ সচিবের দফতরে জমা দেন প্রতিমন্ত্রীর জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন। এরপর সেখান থেকে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়।

প্রধানমন্ত্রী বরাবর পাঠানো পদত্যাগপত্রে মুরাদ বলেন, ‘আমাকে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়। আমি অদ্য ৭ ডিসেম্বর থেকে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে ব্যক্তিগত কারণে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করতে ইচ্ছুক।’

বিজ্ঞাপন

‘এমতাবস্থায় আপনার নিকট বিনীত নিবেদন এই যে, আমাকে অদ্য ৭ ডিসেম্বর তারিখ থেকে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি প্রদানের লক্ষ্যে পদত্যাগপত্রটি গ্রহণে আপনার একান্ত মর্জি কামনা করছি।’

সম্প্রতি সোস্যাল প্লাটফর্মে এক আলাপচারিতায় বিএনপি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানের মেয়ে জায়মা রহমান এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী নেত্রীদের নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন মুরাদ। যার প্রেক্ষিতে তার পদত্যাগ দাবি করেন নারী অধিকারকর্মীরা।

এরপর ঢাকা চলচ্চিত্রের এক নায়িকার সঙ্গে অডিও রেকর্ড ফাঁস হওয়ায় সোস্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় ওঠে। প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদের পদত্যাগের দাবি ওঠে নানান মহল থেকে।

যার প্রেক্ষিতে সোমবার রাতে ডা. মুরাদ হাসানকে পদত্যাগের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যা গণমাধ্যমকে জানান আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বিজ্ঞাপন