চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পেঁয়াজের সেঞ্চুরি, আমরা এখন কী করি

গত কয়েক মাস ধরেই দেশে পেঁয়াজের দাম চড়া। চালের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়ে পেঁয়াজ অর্জন করেছে সেঞ্চুরির মাইল ফলক। কেজি প্রতি ৯০ থেকে ১০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। পেঁয়াজের এই অর্জনে ক্রেতা সাধারণের নাভিশ্বাস অবস্থা।

শুধু পেঁয়াজই নয়, লাগামছাড়া দ্রব্যমূল্যের প্রতিযোগিতায় যোগ দিয়েছে নিত্য প্রয়োজনীয় অনেক পণ্য। দৈবচক্রে বেড়ে চলেছে চাল, শীতকালীন সবজিসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য।  বাজারে এখন প্রতিকেজি পাঁকা টমেটো বিক্রি হচ্ছে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি দরে। যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ১০০ থেকে ১১০ টাকা কেজি। এছাড়া প্রতিটি ফুলকপি বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকায়, প্রতিকেজি শিম ৪৫ থেকে ৫৫ টাকা, গাজর ৮০ থেকে ৯০ টাকা, পটল ৫০থেকে ৫৫ টাকা, চিচিঙ্গা ৫৫ থেকে ৬০ টাকা, ঢেঁড়স ৪৫ থেকে ৫০ টাকা, বরবটি ৭০ থেকে ৮০ টাকা, বেগুন ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি দরে এবং প্রতিটি লাউ বিক্রি হচ্ছে ৪৫ টাকা থেকে ৬০ টাকায়। আর মরিচ বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৩০ টাকায়।

বিজ্ঞাপন

সরকারের পক্ষ থেকে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে দাবি করা হলেও এর বাস্তবায়ন তেমন লক্ষ্য করা যায় না। ব্যবসায়িক সিন্ডিকেট তাদের ইচ্ছেমতো পণ্যের দাম বাড়িয়ে দেয়। আর ভুক্তভোগী হয় সাধারণ মানুষ।

ব্যবসায়ীরাও পেঁয়াজের এই দাম বাড়ার কারণ জানেন না বলে জানান। তারা জানান কিছুদিন পরই বাজারে নতুন পেঁয়াজ আসবে। তাই এখন দাম কমার কথা। কিন্তু উল্টো বাড়ছে। এভাবে দাম বাড়া ঠিক নয়। তবে পাইকারিতে দাম বাড়ায় আমাদেরকেও বেশি দামে বিক্রি করতে হয়।

বিজ্ঞাপন

পেঁয়াজের দাম কয়েক মাস ধরেই লাগামহীন। ৩০-৪০ টাকা কেজির পেঁয়াজ হঠাৎ বেড়ে হয় ৬০-৭০ টাকা। এই অবস্থার মধ্য দিয়েই যাচ্ছিলেন ক্রেতারা। দাম কমার কোন লক্ষণ দেখছিলেন না তারা। এর ওপর আবার দাম বাড়ায় ক্রেতা সাধারণের অবস্থা আরও করুণ।

কোন কোন ব্যবসায়ী পেঁয়াজের দাম বাড়ার কারণ হিসেবে ভারতে দাম বেড়ে যাওয়াকে দায়ী করছেন।তারা বলছেন বাংলাদেশে যে পরিমাণ পেঁয়াজ উৎপাদন হয় তা দিয়ে দেশে চাহিদা মেটানো যায় না। ফলে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করতে হয়।

এটিই খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার। আমদানি নির্ভর দেশের পণ্যের দাম অন্য দেশের কারণে প্রভাবিত হবে সেটিই স্বাভাবিক। কিন্তু এই অজুহাতে তো আমরা নাকে তেল দিয়ে ঘুমাতে পারিনা। এর জন্য আমাদের পূর্ব প্রস্তুতি থাকতে হবে। নইলে ভোগান্তির যাতাকলে পিষ্ট হতে হতে একসময় প্রাণ যাওয়ার উপক্রম হবে আমাদের।

এভাবে চলতে থাকলে আমাদের খাদ্যাভাসে পরিবর্তন আনতে হবে। পেঁয়াজ ছাড়া তরকারি খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে। আর পেঁয়াজ খেলে মুখে গন্ধ হয়, এই ভাবনা থেকে কাঁচা পেঁয়াজের ব্যবহার ছেড়ে দিয়ে আমরা উদযাপন করবো পেঁয়াজের সেঞ্চুরি!

(এ বিভাগে প্রকাশিত মতামত লেখকের নিজস্ব। চ্যানেল আই অনলাইন এবং চ্যানেল আই-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে প্রকাশিত মতামত সামঞ্জস্যপূর্ণ নাও হতে পারে)

Bellow Post-Green View